জীবনযাপন

হবু বর-কনের জন্য বিশেষ পরামর্শ

বিয়ে করতে যাচ্ছেন—এমন হবু বর-কনের জন্য রস+আলো দিচ্ছে কিছু অমূল্য পরামর্শ, একদম ফ্রি! লিখেছেন অবিবাহিত লেখক মো. মিকসেতু

বরদের জন্য পরামর্শ
 বরযাত্রীর গাড়িতে ওঠার আগেই পকেটে একটা নতুন কাঁচি লুকিয়ে রাখুন। কনের বাড়িতে ঢোকার মুখে প্রথম বাধা আসবে গেটে। ফিতা দিয়ে আটকানো গেটের সামনে কনেপক্ষের মেয়েদের হাতের ট্রেতে শোভা পাবে ফিতা কাটার কাঁচি। এন্ট্রি ফির কথা বলে আবদার করবে হাজার হাজার টাকা। ভুলেও তাদের হাতে টাকা তুলে দেবেন না। টাকা এত সস্তা নয়। সবাই যখন টাকার অঙ্ক নিয়ে হইচই-হাঙ্গামা করবে, তখন সুযোগ বুঝে পকেট থেকে লুকানো কাঁচি বের করে ফিতা কেটে সরাসরি ঢুকে পড়ুন।
 গেট পাস অর্জন করলেও আপনার ওপর নানামুখী আক্রমণের তির ছুটে আসতেই থাকবে। দ্বিতীয় ঝাপটাটা যাবে জুতার ওপর দিয়ে। কনেপক্ষের যারা বয়সে ছোট, মানে যারা গেট ধরার সময় চান্স পায়নি, তারা আপনার জুতার দিকে লোলুপ দৃষ্টি দেবে। জুতা গায়েব করে আদায় করার চেষ্টা করবে কিছু নগদ অর্থকড়ি। সে জন্য সব সময় জুতার ওপর নজর রাখুন। কোনোভাবেই আক্কেলসেলামি দেওয়া যাবে না। জুতা যদি চুরি হয়েই যায়, সে ক্ষেত্রে দেখতে একই রকম হুবহু অতিরিক্ত এক জোড়া জুতা ব্যাকআপ হিসেবে রাখুন। যারা জুতা চুরি করে আপনাকে ব্ল্যাকমেল করার চেষ্টা করবে, তাদের দেখিয়ে দেখিয়ে ব্যাকআপ জুতা পায়ে দিয়ে হাঁটাহাঁটি করুন।
 কনেবাড়িতে খাবার দিয়ে বিভিন্নভাবে আপনাকে অপদস্থ করার চেষ্টা করা হবে। চিনির শরবত শুনে মুখে দিয়ে টের পাবেন গোল মরিচের শরবত। ঝালে আপনার প্রাণ যায় যায় অবস্থা। ইজ্জত নিয়েও টানাটানি। তাই পকেটে রাখুন চিনির প্যাকেট। গোল মরিচ, কাঁচা মরিচ—যে শরবতই দিক, ওদের দেখিয়ে দেখিয়ে ঢকঢক করে গিলে ফেলুন। ঝাল লাগলেও প্রকাশ করবেন না। আড়াল পাওয়ামাত্রই পলিথিনসুদ্ধ চিনির আস্ত প্যাকেট মুখে পুরে দিন।
 বাসরঘরে এক হাতে বিড়াল অন্য হাতে ছুরি নিয়ে ঢুকুন। সত্যি সত্যি বিড়াল মারার প্রয়োজন নেই। বউকে ভরকে দিন শুধু।

কনের জন্য পরামর্শ
 গায়েহলুদের সময় আত্মীয়স্বজনেরা কপালে হলুদ ছোঁয়ানোর নামে আপনাকে একগাদা মিষ্টি খাওয়ানোর চেষ্টা করবে। ভুলেও তাদের ফাঁদে পা দেবেন না। আপনার ডায়েটের যেন বারোটা না বাজে! এ জন্য একটা মিষ্টিকে কেটে বিশ-ত্রিশ টুকরা করে সামনে রেখে দিন। এরপর যে মিষ্টি খাওয়াতে চাইবে, তার কাছ থেকে এক টুকরা করে খেয়ে নিন। অথবা চাইলে বিশেষ উপায়ে সবজির মিষ্টি বানানোর অর্ডারও দিয়ে রাখতে পারেন।
 বিয়েতে কী পরলেন না পরলেন, সেটা নিয়ে অনেকেরই মাথাব্যথা থাকবে। তবে এটা নিয়ে আপনি ব্যথিত হবেন না। মাথা খাটান, প্রয়োজনে পেশাদার নির্মাতা ভাড়া করুন। তারা আপনার পরিহিত শাড়ি-গয়না-মেকআপ নিয়ে একটি নাতিদীর্ঘ ডকুমেন্টারি তৈরি করে দেবে। যেটা আপনি কিছুক্ষণ পরপরই বিয়ের মঞ্চের পাশে চালিয়ে দেবেন। ডকুমেন্টারির মাঝখানে বিশেষজ্ঞ বা এই লাইনে তারকাদের মন্তব্যও রাখতে পারেন। সমালোচকদের থোতা মুখ ভোঁতা হবেই।
 শ্বশুরবাড়ির সবার মন জয় করতে চাইলে এই পরামর্শ মন দিয়ে পড়ুন। শ্বশুরবাড়ির গৃহপরিচারিকাকে হাত করুন আগেভাগেই। প্রয়োজনে সহনীয় মাত্রায় ঘুষ দিয়ে তার কাছ থেকে জেনে নিন, টিভিতে কে কী বেশি দেখেন। বিশেষ করে টিভি সিরিয়ালগুলোর দিকে বিশেষ মনোযোগ দিন। দেখা না থাকলে দেখুন, ইন্টারনেটে ঘাঁটাঘাঁটি করুন। শাশুড়ির প্রিয় এবং অপ্রিয় চরিত্রগুলো সম্পর্কে ধারণা রাখুন স্পষ্ট।
 বাসরঘরে আপনার বর যদি এক হাতে বিড়াল অন্য হাতে ছুরি নিয়ে ঢোকে, তাহলে ভয় পাবেন না। বুঝে নেবেন, আপনার বর রস+আলো পড়ে এই বুদ্ধি পেয়েছে। সে শুধু আপনাকে ভরকে দেওয়ার জন্যই এসব করছে।