default-image

শিল্পকারখানায় বিনিয়োগকারীদের ২৮ দিনের মধ্যে বিদ্যুৎ–সংযোগ দেবে সরকার; তাও অনলাইনে করা আবেদনের মাধ্যমে। সশরীরে আবেদনপত্র নিয়ে বিদ্যুৎ সংস্থাগুলোর কাছে দৌড়াতে হবে না ব্যবসায়ীদের। আগামী এক মাসের মধ্যে এ ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে বিদ্যুৎ বিতরণকারী চারটি কোম্পানির সঙ্গে সমঝোতা স্মারক সই করেছে বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিডা)। এ সমঝোতার আওতায় বিদ্যুৎ বিতরণকারীদের বিদ্যুৎ–সংযোগসংক্রান্ত সেবা পাওয়া যাবে বিডার ওয়ান স্টপ সার্ভিস সেন্টার (ওএসএস) থেকে।

আজ মঙ্গলবার বিডার কার্যালয়ে বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড, ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি (ডিপিডিসি), নর্দান ইলেকট্রিসিটি সাপ্লাই কোম্পানি এবং ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির সঙ্গে এই সমঝোতা স্মারক সই হয়। এর আগে বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (বিপিডিবি) ও ঢাকা ইলেকট্রিক সাপ্লাই কোম্পানির (ডেসকো) সঙ্গে বিডার সমঝোতা স্মারক সই হয়েছিল।

অনুষ্ঠানে বিডার নির্বাহী চেয়ারম্যান মো. সিরাজুল ইসলাম, বিদ্যুৎসচিব সুলতান আহমেদ, ডিপিডিসির ব্যবস্থাপনা পরিচালক বিকাশ দেওয়ান, বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান মইন উদ্দিন, নর্দান ইলেকট্রিসিটি সাপ্লাই কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক জাকিউল ইসলাম, ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. শফিক উদ্দিন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

বিজ্ঞাপন

বিডা বিনিয়োগকারীদের ওয়ান স্টপ সার্ভিস (ওএসএস) বা এক দরজায় সেবার মাধ্যমে মোট ৩৫টি সংস্থার ১৫৪টি সেবা দিতে কাজ করছে। ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারিতে চালু হওয়া ওএসএসে এখন পর্যন্ত যুক্ত হয়েছে ২১টি সেবা। ৩৫টি সংস্থার মধ্যে ১৬টির সঙ্গে সমঝোতা স্মারক সই করেছে বিডা। আরও ১৬টি সেবা ওএসএসের আওতায় আনার কাজ চলছে।

সবাইকে আমাদের তাগিদ দিতে হয়। বিদ্যুৎ বিভাগ উল্টো তৈরি হয়ে আমাদের তাগিদ দিচ্ছে
সিরাজুল ইসলাম, বিডার নির্বাহী চেয়ারম্যান

ওএসএস বিধিমালায় কোন সেবা কত দিনে দিতে হবে, তা সুনির্দিষ্ট করে দেওয়া হয়েছে। না দিতে পারলে সেটি সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তার চাকরির অসদাচরণ হিসেবে গণ্য হবে। বিধিমালায় বিদ্যুৎ–সংযোগ ২৮ দিনের মধ্যে দেওয়ার কথা রয়েছে।

সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে বিডার নির্বাহী চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম বলেন, বিশ্বব্যাংকের সহজে ব্যবসা সূচক বা ইজ অব ডুয়িং বিজনেসে বিদ্যুৎ–সংযোগ প্রাপ্তির ক্ষেত্রে বাংলাদেশের কিছু উন্নতি হয়েছে। তবে অবস্থা খুব একটা ভালো নয়। আগামী দিনগুলোয় বাংলাদেশ ভালো করবে। কারণ, বিদ্যুৎ বিভাগ এ ক্ষেত্রে উদ্যোগী। তিনি বলেন, ‘সবাইকে আমাদের তাগিদ দিতে হয়। বিদ্যুৎ বিভাগ উল্টো তৈরি হয়ে আমাদের তাগিদ দিচ্ছে।’

বিজ্ঞাপন
একটা সময় মানুষ ভুলেই যাবে যে বিদ্যুৎ নিয়ে কোনো সমস্যা ছিল
সুলতান উদ্দিন, বিদ্যুৎসচিব

সিরাজুল ইসলাম আরও বলেন, সরকারি সংস্থার মধ্যে সমঝোতা হওয়া বড় কিছু নয়। জরুরি হলো সেবাটি দেওয়া। এ ক্ষেত্রে এক মাসের মধ্যে সমঝোতা অনুযায়ী কার্যক্রম শুরু করা সম্ভব হবে বলে আশা রয়েছে।

বিদ্যুৎসচিব সুলতান উদ্দিন বলেন, বিদ্যুৎ–সংযোগ নিয়ে এখন আর সমস্যা নেই। আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে শতভাগ বিদ্যুতায়ন হবে। এখন নিরবচ্ছিন্ন ও মানসম্পন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহে জোর দেওয়া হচ্ছে। তিনি বলেন, ‘একটা সময় মানুষ ভুলেই যাবে যে বিদ্যুৎ নিয়ে কোনো সমস্যা ছিল।’

ঘরে বসে ২১টি

অনুষ্ঠানে বিডার কাছ থেকে ঘরে বসে যে ২১টি সেবা পাওয়া যায়, তা উল্লেখ করা হয়। সেবাগুলো হলো যৌথ মূলধনি কোম্পানি ও ফার্মসমূহের পরিদপ্তরের (আরজেএসসি) কোম্পানির নামের ছাড়পত্র, কোম্পানি নিবন্ধন; জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) ই-টিআইএন; বিডার প্রকল্প নিবন্ধন, অফিস স্থাপনের অনুমতি, মেয়াদ বর্ধিতকরণ, বাতিল ও সংশোধন, ভিসা সুপারিশ ও সংশোধন, ভিসা অন অ্যারাইভাল ও সংশোধন, কাজের অনুমতি, মেয়াদ বর্ধিতকরণ, সংশোধন ও বাতিল, রেমিট্যান্স সার্ভিসেস (নতুন), সোনালী ব্যাংকের অনলাইন পেমেন্ট, নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের জাতীয় পরিচয়পত্র যাচাইকরণ, সুরক্ষা সেবা বিভাগের নিরাপত্তা ছাড়পত্র ও চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের ভূমি ব্যবহার ছাড়পত্র।

বিডার নির্বাহী চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম বলেন, বিনিয়োগকারীরা সহজে, কোনো ঝক্কি ছাড়া তাড়াতাড়ি সেবা চান। এতে তাঁদের ব্যবসার খরচ কমে। তবে তিনি উল্লেখ করেন, কয়েকটি সংস্থার সঙ্গে সমঝোতা হলেও কয়েকটি সেবা এখনো অনলাইনে আসেনি।

মন্তব্য পড়ুন 0