default-image

খুলনা মহানগরের গুরুত্বপূর্ণ সড়কগুলোতে অপরিকল্পিতভাবে অসংখ্য গতিরোধক তৈরি করা হয়েছে। এভাবে গতিরোধক তৈরি করায় ও রোডমার্ক না থাকায় প্রায়ই ঘটছে দুর্ঘটনা।
সরেজমিনে দেখা যায়, মহানগরের সোনাডাঙ্গা থেকে নতুন রাস্তার মোড় পর্যন্ত সড়কের এবং সড়ক ও জনপথ বিভাগের খুলনা-যশোর সড়কে যত্রতত্রভাবে গতিরোধক তৈরি করা হয়েছে। সোনাডাঙ্গা-নতুন রাস্তা সড়কটির মধ্যে অন্তত ১০টি গতিরোধক রয়েছে। অন্যদিকে খুলনা থেকে ফুলতলা পর্যন্ত ২০ কিলোমিটারের মধ্যে অন্তত ৩০টি গতিরোধক আছে। এসব গতিরোধক প্রয়োজনের তুলনায় উঁচু ও যত্রতত্রভাবে তৈরি করা হয়েছে। এ ছাড়া এগুলোতে কোনো রোডমার্ক না থাকায় এসব গতিরোধকেই প্রতিনিয়ত ঘটছে দুর্ঘটনা।
সওজ খুলনার নির্বাহী প্রকৌশলী আলিউল হোসেন বলেন, ‘মন্ত্রণালয়ের নির্দেশ রয়েছে যে ঝুঁকিপূর্ণ সেতু ও রেলক্রসিংয়ের দুই পাশে গতিরোধক দেওয়া যাবে। কিন্তু আমাদের সড়কে অধিকাংশ গতিরোধকই অপরিকল্পিতভাবে দেওয়া। ফলে দুর্ঘটনা বাড়ছে।’খুলনা সিটি করপোরেশনের নির্বাহী প্রকৌশলী-২ লিয়াকত আলী খান জানান, সোনাডাঙ্গা থেকে নতুন রাস্তা সড়কের গতিরোধকগুলো তৈরি করা হয়েছে হাসপাতাল ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের কথা বিবেচনা করে। আর কিছু গতিরোধক করা হয়েছে এলাকাবাসীর চাপের মুখে। শিগগির গতিরোধকগুলোতে রোডমার্ক দেওয়া হবে।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন