অবরোধ-হরতাল উপেক্ষা করে বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার কিচক ইউনিয়নের কিচক আলুর হাট সরগরম হয়ে উঠেছে। অনেক চাষি এখন খেত থেকে আলু তুলে বাজারে আনছেন। আর ব্যবসায়ীরা সেগুলো ট্রাকে করে নিয়ে যাচ্ছেন দেশের বিভিন্ন স্থানে।
গতকাল বুধবার সকালে আলুর হাট কিচকে গিয়ে দেখা যায়, দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে অবরোধ-হরতাল উপেক্ষা করে ব্যবসায়ীরা আলু কিনতে এসেছেন। উপজেলার বিভিন্ন গ্রাম থেকে রিকশাভ্যান বা ভটভটিতে করে চাষিরা আলু নিয়ে আসছেন। হাটের বিভিন্ন জায়গায় আলুর স্তূপ করে রাখা। এসব আলু কিনে ট্রাকে করে ব্যবসায়ীরা নিয়ে যাচ্ছেন। ভ্যান, ভটভটি আর ট্রাকের লম্বা লাইনের কারণে বগুড়া-জয়পুরহাট আন্তমহাসড়কে দীর্ঘ যানজটেরও সৃষ্টি হয়েছে।
কিচক হাটের সাত-আটজন চাষি ও ব্যবসায়ী জানান, অবরোধ-হরতালে লোকজন মানুষ অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছেন। তাই মানুষ আগের মতোই তাঁদের উৎপাদিত পণ্য নিয়ে হাটে আসছেন। সপ্তাহের রোববার, বুধবার ও শুক্রবার এখানে হাটবার। এই তিন দিনে ভোর থেকে দুপুর পর্যন্ত আলু বেচাকেনা চলে। প্রতিদিনই আলুর দাম বেড়ে চলেছে।
উপজেলার কুড়াহার গ্রামের আলু চাষি ইয়াছিন আলী এবার তিন বিঘা জমিতে আলুর আবাদ করেন। টানা অবরোধ-হরতালের কারণে খেত থেকে তোলার উপযোগী হওয়ার পরও বেশ কিছুদিন আলু খেতেই ফেলে রেখেছিলেন। কিন্তু এখন সেগুলো বাজারে নিয়ে এসেছেন।
ইয়াছিন আলী বলেন, ‘যারা আজনীতি করে তারকে খাবার তো মানষে দ্যায়। কিন্তু হামরা খাবার পাই কুন্টি। ভয় করলে প্যাটোত পাথর ব্যান্ধা থাকা লাগবি। তাই বাজারোত আসিছি। যা হয় হবি।’
উপজেলার চন্দনপুর গ্রামের আলু চাষি একরাম হোসেন বলেন, গত রোববার তিনি পাকরি জাতের আলু ৩৯০ টাকা মণ দরে বিক্রি করেছেন। আর বুধবার সেই আলু বিক্রি করেন ৪৩০ টাকা মণ দরে।
উপজেলা হাটবাজার লেবার ইউনিয়নের সভাপতি রফিকুল ইসলাম জানান, গতকাল বুধবার ৭০ ট্রাক আলু কিচক হাট থেকে দেশের বিভিন্ন জায়গায় গেছে।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন