অবৈধভাবে বালু তোলার দায়ে এক লাখ টাকা জরিমানা

বিজ্ঞাপন
default-image

চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলায় পদ্মা নদী থেকে অবৈধভাবে বালু তোলার দায়ে এক ব্যক্তিকে এক লাখ টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। আজ শুক্রবার সদর উপজেলার দেবীনগর ইউনিয়নের তরফাঘাট এলাকায় ওই অভিযান পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাইফুল ইসলাম।

সাইফুল ইসলাম জানান, দুপুর ১২টা থেকে বেলা ৩টা পর্যন্ত পদ্মা নদীর তরফাঘাট এলাকায় অভিযান চালানো হয়। অভিযান চালাতে সহায়তা করেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদরের সহকারী কমিশনার (ভূমি) আনিসুর রহমান ও সদর থানা পুলিশের একটি দল। অভিযানের সময় পদ্মা নদী থেকে একটি ড্রেজার দিয়ে বালু তোলা হচ্ছিল। নদীর পাড়ে রাখা ছিল প্রায় দুই লাখ ঘনফুট বালু। এ ঘটনায় বালু তোলার সঙ্গে জড়িত দুই শ্রমিক মো. আসলাম ও মো. রফিককে আটক করা হয়।

বালু তোলার কাজে নিয়োজিত বালুশ্রমিকদের বরাত দিয়ে সাইফুল ইসলাম বলেন, এসব বালু নদীভাঙনকবলিত স্থানে বস্তা ভর্তি করে ফেলার জন্য তোলা হচ্ছিল। এ কাজের জন্য প্রায় ২০ হাজার ঘনফুট বালুর প্রয়োজন থাকলেও তাঁরা বিপুল পরিমাণ বালু তুলে অবৈধভাবে বিক্রি করছেন। এতে নদীর পাড় ভাঙছে। তাই অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের দায়ে তাঁদের মালিককে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এ সময় একটি ড্রেজার, বালুভর্তি একটি কার্গো ও প্রায় দুই লাখ ঘনফুট বালু জব্দ করা হয়। এগুলো দেবীনগর ইউনিয়ন পরিষদের ১ ও ৪ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য যথাক্রমে আবদুর রহমান ও মো. বকুলের জিম্মায় রেখে আসা হয়েছে। এগুলোর বিষয়ে সরকারি সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ বিষয়ে দেবীনগর ইউনিয়নের তরফাঘাট এলাকার কয়েকজন অভিযোগ করেন, সদর উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আকতারুজ্জামান ওরফে টিপু ওই এলাকা থেকে বালু তুলছেন। কিন্তু মো. আকতারুজ্জামান ওই এলাকা থেকে বালু তোলার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন