অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে বাধা, ১০জনের কারাদণ্ড

বিজ্ঞাপন
default-image

চট্টগ্রামে পাহাড় কেটে গড়া অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে বাধা দেওয়ার অপরাধে ১০জনেক এক সপ্তাহের কারাদণ্ড দেওয়া হয়। আজ বুধবার দুপুরে নগরের জালালাবাদ এলাকায় উচ্ছেদ অভিযান চলাকালে এই ঘটনা ঘটে।

জেলা প্রশাসন, পরিবেশ অধিদপ্তর, পুলিশ ও রেলওয়ে যৌথভাবে এই অভিযান চালায়। অভিযান পরিচালনা করেন পাঁচ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। উপস্থিত ছিলেন পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক (মেট্রো) নুরুল্লাহ নূরী, পরিচালক (অঞ্চল) মোয়জ্জম হোসেন প্রমুখ।

সকালে উচ্ছেদ শুরু হওয়ার পর জালালবাদ এলাকায় অবৈধ স্থাপনায় অভিযান চালাতে গিয়ে বাধা পায় অভিযানকারীরা। এ সময় ২০ -২৫ জনের একটি দল শ্রমিকদের উচ্চেদে বাধা দেয়। এ সময় দুই শ্রমিককে মারধরও করে। পরে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ঘটনাস্থল থেকে গ্রেপ্তার করা হয় ১০ জনকে।

ম্যাজিস্ট্রেট তৌহিদুল ইসলাম বলেন, ঘটনাস্থল থেকে গ্রেপ্তার হওয়া ১০ জনকে সাত দিন করে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। তারা সরকারি কাজে বাধা সৃষ্টি করেছিল। আহত দুজনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

অভিযানে ৩৫০টি ঝুঁকিপূর্ণ ঘরবাড়ি উচ্ছেদ করা হয়। পাশাপাশি বিদ্যুতের ৩০ টি মিটার জব্দ করা হয়েছে। পাহাড়ি ঝুঁকিপূর্ণ স্থাপনায় বিনা মালিকানার জমিতে কীভাবে বিদ্যুৎ মিটার সংযোগ দেওয়া হলো তা তদন্ত করে দেখা হবে বলে জানানো হয়।

ম্যাজিস্ট্রেট তৌহিদুল ইসলাম বলেন, খুব সম্প্রতি এসব অবৈধ ঘর নির্মাণ করা হয়। সাড়ে তিনশ ঘর উচ্ছেদ করা হয়। এখানে পাহাড় কেটে এসব ঘর করা হয়। পাহাড়ধসে প্রাণহানির শঙ্কাও রয়েছে। তারা কীভাবে বিদ্যুতের মিটার পেল তা বোধগম্য নয়।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন