অভিনব কায়দায় হত্যা মামলার আসামি গ্রেপ্তার

বিজ্ঞাপন

টানা কয়েক মাস মুঠোফোনে প্রেম। অতঃপর পালিয়ে যাওয়ার প্রস্তুতি। দিনক্ষণও ঠিক। প্রেমিকের কথামতো নির্দিষ্ট সময়ে নির্দিষ্ট স্থানে চলে এলেন প্রেমিকা। কিন্তু বেচারা প্রেমিক তাঁর এত দিনের প্রেমিকার হাতেই হলেন গ্রেপ্তার।
অভিনব কায়দায় আসামি গ্রেপ্তারের এ ঘটনা ঘটেছে গত রোববার। আসামির নাম সুজন মিয়া (২৮)। তিনি একটি হত্যা মামলার প্রধান আসামি। এত দিন পলাতক ছিলেন।
কেন্দুয়া থানার পুলিশ জানায়, গত বছরের আগস্টে কেন্দুয়ার ভরাপাড়া গ্রামের দুলাল মিয়ার ছেলে হারুনুর রশীদ (২১) খুন হন। এ ঘটনায় তাঁর বাবা দুলাল মিয়া বাদী হয়ে একই গ্রামের সুজন মিয়াকে প্রধান আসামি করে থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। সেই থেকে সুজন পলাতক। পুলিশ অনেক চেষ্টা করেও তাঁকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি। একপর্যায়ে পুলিশ সুজনের মোবাইল নম্বর সংগ্রহ করে তাঁকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে। সেই ফাঁদে ধরা খেয়ে সুজন এখন কারাগারে।
পুলিশ জানায়, হারুনুর রশীদ হত্যা মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কেন্দুয়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মেরাজুল ইসলামের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল রোববার বিকেলে কিশোরগঞ্জ জেলা সদর থেকে সুজনকে গ্রেপ্তার করে। এতে সহায়তা করে কিশোরগঞ্জ মডেল থানা পুলিশ।
কেন্দুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার দায়িত্বে থাকা পরিদর্শক (তদন্ত) অভিরঞ্জন দেব জানান, আসামি সুজন ঘটনার পর থেকে পলাতক ছিলেন। তাঁকে ধরার জন্য অনেক চেষ্টা করা হয়েছে। এতে কাজ না হওয়ায় অবশেষে প্রেমের ফাঁদ ফেলা হয়। গতকাল সুজনকে আদালতে পাঠানো হয়। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাঁর পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন