বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

দুই দেশের পররাষ্ট্রসচিবদের বৈঠকের পর পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, সামনের মাসগুলোতে হতে যাওয়া উচ্চপর্যায়ের গুরুত্বপূর্ণ সফর এবং ভবিষ্যৎ সহযোগিতার সম্ভাব্য ক্ষেত্রগুলো নিয়ে মাসুদ বিন মোমেন ও হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা আলোচনা করেছেন।

এ বছরের দ্বিতীয়ার্ধে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এবং আগামী কয়েক মাসের মধ্যে যৌথ পরামর্শক কমিটির বৈঠকে অংশ নিতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেনের ভারত সফরের কথা রয়েছে।

মাসুদ বিন মোমেন মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের আদি নিবাসে দ্রুত, নিরাপদ ও টেকসই প্রত্যাবাসনে প্রয়োজনীয় সহযোগিতার জন্য হর্ষ বর্ধন শ্রিংলাকে অনুরোধ জানান।

হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা জাতিসংঘসহ বিভিন্ন প্ল্যাটফর্মে একে অপরকে সমর্থন করার জন্য একসঙ্গে কাজ করার জন্য ভারতের প্রতিশ্রুতি পুনর্ব্যক্ত করেন। বাংলাদেশে ভারতীয় ঋণ চুক্তির আওতায় বিভিন্ন প্রকল্প দ্রুত বাস্তবায়নে ভারত সরকারের প্রতিশ্রুতি পুনর্ব্যক্ত করেন।

পররাষ্ট্রসচিব মাসুদ বিন মোমেন ভারতের পররাষ্ট্রসচিবকে স্বাধীনতা সড়ক সম্পূর্ণ ও থিয়েটার রোডের ঐতিহাসিক ভবনটি হস্তান্তরে সহায়তার জন্য অনুরোধ করেন।

উভয় দেশের পররাষ্ট্রসচিব কোভিড পরিস্থিতির সন্তোষজনক উন্নতি হওয়ায় স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে যাওয়ার ওপর জোর দেন। তারা কোভিড-১৯ মহামারির কারণে স্থগিত বিভিন্ন শহরের মধ্যে বাস ও রেল পরিষেবা চালুর বিষয়ে আলোচনা করেছেন। উভয় পররাষ্ট্রসচিব আঞ্চলিক সহযোগিতা এবং সমসাময়িক বৈশ্বিক সমস্যা নিয়েও আলোচনা করেন।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন