নেত্রকোনার সদর উপজেলার দক্ষিণ সাতপাই এলাকার অ্যাসিডদগ্ধ হোসনে আরার হাতে প্রথম আলো ট্রাস্টের উদ্যোগে ৫০ হাজার টাকার সঞ্চয়পত্র তুলে দেওয়া হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে অ্যাসিডদগ্ধ নারীদের জন্য প্রথম আলো ট্রাস্ট সহায়ক তহবিলের উদ্যোগে আয়োজিত সভায় হোসনে আরার হাতে সঞ্চয়পত্র তুলে দেওয়া হয়।

পুনর্বাসন ও সচেতনতামূলক ওই সভায় আইনজীবী সিরাজুল ইসলামের সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন নেত্রকোনা কালেক্টরেটের স্থানীয় সরকারের উপপরিচালক (উপসচিব) মো. লুৎফর রহমান, প্রথম আলো ট্রাস্টের সমন্বয়কারী ফেরদৌস ফয়সাল প্রমুখ।

লুৎফর রহমান বলেন, ‘প্রথম আলো সমাজের জন্য কাজ করে। সমাজ পরিবর্তনের জন্য কাজ করে। এটি প্রথম আলো ট্রাস্টের মহতী উদ্যোগ। সরকারও অ্যাসিড-সন্ত্রাস নির্মূলের জন্য কাজ করে যাচ্ছে। হোসনে আরা তাঁর শারীরিক ক্ষতি পুষিয়ে নিতে না পারলেও ঘুরে দাঁড়াতে পারবেন বলে আশা করছি। নেত্রকোনা জেলা প্রশাসন থেকে তাঁকে পুনর্বাসনে আরও কিছু উদ্যোগ নেওয়া হবে।’ 

ফেরদৌস ফয়সাল বলেন, হোসনে আরার মতো সারা দেশে ২৮৬ জনকে পুনর্বাসন করছে প্রথম আলো ট্রাস্ট। হোসনে আরাকে পাঁচ বছর মেয়াদি ৫০ হাজার টাকার স্থায়ী আমানত হিসেবে এই সঞ্চয়পত্র কিনে দেওয়া হয়েছে। এ থেকে তিনি প্রতি মাসে ৫৩৫ টাকা তুলতে পারবেন।

নেত্রকোনা সদর উপজেলার দক্ষিণ সাতপাই এলাকার দুলাল মিয়ার মেয়ে হোসনে আরা। ২০০৮ সালে একই উপজেলার বেতাটি গ্রামের আসমত আলীর ছেলে দুলালের সঙ্গে তাঁর বিয়ে হয়।  বিয়ের পর স্ত্রীর পরিবারের কাছে দুলাল ৫০ হাজার টাকা যৌতুক দাবি করেন। যৌতুক না পেয়ে  ২০১১ সালে হোসনে আরার ওপর অ্যাসিড নিক্ষেপ করা হয়। এতে  তাঁর শরীরের বেশির ভাগ অংশ  পুড়ে যায়। দীর্ঘদিনের চিকিৎসায় কিছুটা সুস্থ হয়ে উঠলেও পরিবার অসচ্ছল হওয়ায় মানবেতর জীবন যাপন করছেন হোসনে আরা।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন