যুক্তরাজ্যপ্রবাসী ১২ সদস্যের বাংলাদেশি পরিবারটি মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেটের (আইএস) নিয়ন্ত্রিত ‘ইসলামি রাষ্ট্রে’ আছে বলে দাবি করা হয়েছে। আইএসের পক্ষ থেকে ‘সংবাদ বিজ্ঞপ্তি’ দিয়ে এই দাবি করা হয়। ‘সংবাদ বিজ্ঞপ্তির’ সঙ্গে পরিবারটির বিবৃতি, পরিবারের প্রধান আবদুল মান্নান (৭৫) ও তাঁর স্ত্রীর মিনারা খাতুনের (৫৩) ছবি সংযুক্ত করা হয়েছে। খবর বিবিসি ও পিটিআইয়ের।
যুক্তরাজ্যের বেডফোর্ডশায়ারের লুটন শহরের বসবাসকারী পরিবারটি ছুটি কাটাতে বাংলাদেশে যায়। সেখান থেকে ফেরার পথে নিখোঁজ হয়। ১৭ মে থেকে পরিবারটির খোঁজ মিলছিল না। যুক্তরাজ্যের পুলিশ ধারণা করছিল, পরিবারটি আইএসে যোগ দিতে সিরিয়া চলে গিয়ে থাকতে পারে।
ওই পরিবারের অন্য সূত্রগুলো যখন বলছে যে, ওই ১২ জনের সিরিয়ায় যাওয়ার ব্যাপারে তাঁরা নিশ্চিত তথ্য পেয়েছেন, তখন আইএসের ‘সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে’ কথিত বিবৃতি ও ছবি প্রকাশ হলো।
আইএসের পক্ষে লড়াই করছে এমন এক ব্রিটিশ নাগরিকের কাছ থেকে বিবৃতিটি পেয়েছে বিবিসি। তবে এই সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়, বিবৃতিটির সত্যাসত্য নিরপেক্ষ কোনো সূত্রের মাধ্যমে নিশ্চিত করা সম্ভব হয়নি।
মান্নানের কথিত বিবৃতিতে বলা হয়, ‘আমরা সত্যিই ইসলামি রাষ্ট্রে আছি, এটা নিশ্চিত করতেই এই বিবৃতি দিচ্ছি। এই রাষ্ট্র দুর্নীতি ও মানুষের তৈরি আইনের নিপীড়নমুক্ত এবং শরিয়া মোতাবেক সঠিকভাবে এবং শুধু মহান আল্লাহর আইনে পরিচালিত।’ এতে বলা হয়, ‘হ্যাঁ, আমরা ১২ জনের সবাই এখানে আছি। কিন্তু ১২ জন—এই সংখ্যা নিয়ে কেন উদ্বিগ্ন হতে হবে, যেখানে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে হাজার হাজার মুসলমান স্থলপথ ও পানিপথে প্রতিদিন এই ইসলামি রাষ্ট্রে আসছে?’ আরও বলা হয়, ‘কেউ আমাদের ইচ্ছার বিরুদ্ধে কোনো জোর খাটায়নি।’ প্রসঙ্গত, আইএস সিরিয়া ও ইরাকের কিছু অংশ নিয়ন্ত্রণে নিয়ে ‘খিলাফত প্রতিষ্ঠা’ করেছে।
কথিত ওই বিবৃতির সঙ্গে পাঠানো একটি ছবিতে দেখা যায়, পরিবারের প্রধান আবদুল মান্নান চেয়ারে বসে ডান হাতের তর্জনী উঁচিয়ে ধরেছেন। তাঁর পাশে দাঁড়ানো নেকাব পরা নারীকে মান্নানের স্ত্রী মিনারা বলে উল্লেখ করা হয়েছে।
পরিবারটির অন্য সদস্যরা হলেন: মান্নান-মিনারা দম্পতির মেয়ে রাজিয়া খানম (২১), ছেলে মোহাম্মদ জাইদ হুসাইন (২৫) মোহাম্মদ তৌফিক হুসাইন (১৯), মোহাম্মদ আবুল কাশেম সরকার (৩১) ও তাঁর স্ত্রী সৈয়দা খানম (২৭), মোহাম্মদ সালেহ হুসাইন (২৬) ও তাঁর স্ত্রী রোশনারা বেগম (২৪) এবং তাঁদের এক থেকে ১১ বছর বয়সী তিন শিশুসন্তান।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0