বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, আগামীকাল বৃহস্পতিবার কালকিনির ও ডাসার উপজেলার ১৩টি ইউপিতে নির্বাচন। এই নির্বাচনে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে সকালে ইউপি চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের প্রার্থী চান মিয়া শিকদার ও ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী মিলন মিয়ার সমর্থকদের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ সময় অর্ধশত ককটেল ও হাতবোমার বিস্ফোরণ ঘটিয়ে এলাকায় আতঙ্ক সৃষ্টি করা হয়। এতে উভয় পক্ষের আহত হন অন্তত ২৫ জন।

আহত ব্যক্তিদের উদ্ধার করে কালকিনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। তাঁদের মধ্যে তিনজনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় বরিশালের শের-ই বাংলা মেডিকেলে পাঠানো হয়েছে। খবর পেয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে পুলিশ। ঘটনাস্থলে র‌্যাব ও অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

কালকিনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসা কর্মকর্তা আসিফ ইয়াজদানী বলেন, ‘হামলায় অন্তত ১০ জন ভর্তি রয়েছেন। এর মধ্যে তিনজনের অবস্থা গুরুতর। বোমা হামলায় তাঁদের শরীরের বিভিন্ন স্থানে ক্ষতের সৃষ্টি হয়েছে।

আওয়ামী লীগের ‘বিদ্রোহী’ চেয়ারম্যান প্রার্থী মিলন মিয়া প্রথম আলোকে বলেন, ‘প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী চান মিয়ার নির্দেশে ভোর সাড়ে ৬টায় প্রথমে আমার বাড়িতে হামলা চালানো হয়। ওদের টার্গেট ছিল আমাকে হত্যা করা। বাড়িতে হামলা পরে আমাদের লোকজন ধাওয়া দিয়ে চান মিয়ার সমর্থকদের মাথাভাঙ্গা এলাকায় নিয়ে যান। পরে সেখানে আমার সমর্থকদের সঙ্গে আওয়ামী লীগের কর্মী-সমর্থকদের সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে আমাদেরই লোকজন বেশি আহত হয়েছেন।’

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী চান মিয়া শিকদার বলেন, ‘নির্বাচনী এলাকায় মিলন নিজের প্রভাব বিস্তারের জন্য প্রথমে ককটেল বিস্ফোরণ ঘটান। পরে আমার নেতা-কর্মীরা মিলনের নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলেন। মিলন নিজের দোষ আড়াল করতে আমার নামে মিথ্যা দোষারোপ করছেন।’

এ সম্পর্কে কালকিনি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইসতিয়াক আশফাক প্রথম আলোকে বলেন, দুই পক্ষের মধ্যেই আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্রে আরও আগে থেকেই বিরোধ চলছিল। নির্বাচনে দুজন আবার চেয়ারম্যান প্রার্থী। ভোটের আগে এলাকায় আধিপত্য দেখানোর জন্য তাঁদের সমর্থকেরা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। এ সময় কিছু ককটেলের বিস্ফোরণও ঘটানো হয়। এতে বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। এর মধ্যে দুজনের অবস্থা বেশি খারাপ। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ ৮ জনকে আটক করেছে। এ ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন