default-image

বিদেশ থেকে আকাশপথে বাংলাদেশে এলে এখন থেকে বাধ্যতামূলক প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে তিন দিন। আর যাঁরা করোনার দুই ডোজ টিকা নিয়েছেন, তাঁদের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে না। কিন্তু বাড়িতে হোম কোয়ারেন্টিনে ১৪ দিন থাকতে হবে।

বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক) শুক্রবার সন্ধ্যায় নতুন এ সিদ্ধান্তের কথা প্রথম আলোকে জানিয়েছে। এ সিদ্ধান্ত শনিবার থেকে কার্যকর হবে।
বেবিচক বলছে, ভারত থেকে কেউ স্থলপথে এলে তাঁকে বাধ্যতামূলক প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে ১৪ দিন থাকতে হবে। আগে আকাশপথে এলেও ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনের নির্দেশনা ছিল।

বেসামরিক বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের আন্তমন্ত্রণালয়ের বৃহস্পতিবারের এক সভায় বাংলাদেশে আকাশপথে আসা ব্যক্তিদের কোয়ারেন্টিনের সীমা কমিয়ে আনার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত হয়।

সন্ধ্যায় বেবিচক চেয়ারম্যান এম মফিদুর রহমান প্রথম আলোকে বলেন, ‘আন্তমন্ত্রণালয়ের সভায় সিদ্ধান্ত হয় তাৎক্ষণিকভাবে এ সিদ্ধান্ত কার্যকর করার। আগামীকাল (শনিবার) থেকেই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করার চেষ্টা চলছে। তবে কিছু কাজ যেমন চিকিৎসকসহ অন্যান্য ব্যবস্থা ঠিক করতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও আর্মড ফোর্স ডিভিশনের আলোচনা চলছে। আশা করি, কাল (শনিবার) থেকেই শুরু হবে।’

বিজ্ঞাপন

বেবিচক চেয়ারম্যান জানান, উত্তরার দিয়াবাড়ি আইসোলেশন সেন্টার ও ব্র্যাক ট্রেনিং সেন্টারে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনের ব্যবস্থা করা হচ্ছে। সশস্ত্র বাহিনী বিভাগ একটি ৬০০ সিটের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিন সেন্টার করবে।

বেবিচক জানিয়েছে, বিদেশ থেকে বাংলাদেশে আসাদের মধ্যে যাঁদের করোনার একটি ডোজের টিকা নেওয়া আছে বা একটিও নেই এবং করোনার পরীক্ষার নেগেটিভ সনদ আছে, তাঁদের তিন দিনের বাধ্যতামূলক প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। তিন দিন পর করোনা পরীক্ষায় নেগেটিভ এলে তাঁরা বাড়িতে ফিরতে পারবেন। তবে বাড়িতে গিয়েও তাঁদের ১১ দিনের হোম কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। যাঁদের করোনার দুটি টিকা দেওয়া আছে এবং করোনা পরীক্ষায় নেগেটিভ সনদ থাকবে, তাঁদের কেবল ১৪ দিনের হোম কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিন তাঁদের জন্য নয়।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন