আজ শুক্রবার, পয়লা মে। মহান মে দিবস। সারা বিশ্বের শ্রমজীবী মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠায় দিবসটি পালন করা হয়। ১৮৮৬ সালে যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগো শহরের হে মার্কেটের শ্রমিকেরা আট ঘণ্টা কাজের দাবিতে আন্দোলনে নামেন। ওই দিন অধিকার প্রতিষ্ঠার আন্দোলন করতে গিয়ে কয়েকজন শ্রমিককে জীবন দিতে হয়। এর পর থেকে দিনটি ‘মে দিবস’ হিসেবে পালিত হয়ে আসছে।
বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো দিবসটি বাংলাদেশেও পালিত হচ্ছে। দিবসটি উপলক্ষে আজ সরকারি ছুটি। এ বছর বাংলাদেশে দিবসটির প্রতিপাদ্য হলো ‘শ্রমিক-মালিক ঐক্য গড়ি, সোনার বাংলা গড়ে তুলি’।
দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ, বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া পৃথক বাণী দিয়েছেন।
দিনটি উপলক্ষে রাষ্ট্রীয়ভাবে দুই দিনব্যাপী কর্মসূচি পালিত হবে। কর্মসূচি বাস্তবায়ন করবে শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়। আজ সকাল সাড়ে সাতটায় মতিঝিলের শ্রম ভবনের সামনে থেকে শ্রম প্রতিমন্ত্রী মুজিবুল হকের নেতৃত্বে একটি শোভাযাত্রা হবে। বিকেলে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে দিবসের নানা কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
দিবসের তাৎপর্য তুলে ধরে সংবাদপত্রে বিশেষ ক্রোড়পত্র ও টেলিভিশনে অনুষ্ঠান প্রচারিত হবে।
বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র সকাল সাড়ে নয়টায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শ্রমিক সমাবেশ করবে। নৌমন্ত্রী শাজাহান খানের নেতৃত্বে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন সমাবেশ করবে। বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি পল্টনে সকাল নয়টায় দলীয় কার্যালয়ের সামনে শ্রমিক সমাবেশ করবে।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন