default-image

আজ বৃহস্পতিবার বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের প্রধান ধর্মীয় উৎসব শুভ বুদ্ধপূর্ণিমা। এ দিনে বৌদ্ধ ধর্মের প্রবর্তক গৌতম বুদ্ধের জন্ম, বুদ্ধত্ব লাভ ও মহা পরিনির্বাণ ঘটেছিল। দিনটি উপলক্ষে দেশজুড়ে বিভিন্ন বৌদ্ধবিহারে নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। এসব আয়োজনের মধ্যে রয়েছে বিভিন্ন বিহারে ধর্মীয় পতাকা উত্তোলন, বুদ্ধপূজা ও শীল গ্রহণ, পিণ্ডদান, ভিক্ষু সংঘের প্রাতরাশ, শোভাযাত্রা, আলোচনা সভা প্রভৃতি। দিনটি উপলক্ষে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে।বুদ্ধপূর্ণিমা উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বিরোধীদলীয় নেতা বেগম খালেদা জিয়া পৃথক বাণী দিয়েছেন।দিবসটি উপলক্ষে ঢাকার সবুজবাগে ধর্মরাজিক বৌদ্ধবিহারে দিনব্যাপী অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে বৌদ্ধ কৃষ্টি প্রচার সংঘ। ভোরের প্রভাতফেরি শেষে বাংলাদেশ বৌদ্ধ সাংস্কৃতিক পরিষদের শোভাযাত্রা রয়েছে সকাল সাতটায়। এরপর সাড়ে নয়টায় ‘বুদ্ধের জীবন ও বাণী’ শীর্ষক আলোচনা সভা। বিকেলে সংঘরাজ ধর্মাসেন মহাথেরোর সভাপতিত্বে ‘বৌদ্ধ ধর্ম ও বিশ্ব শান্তি’ শীর্ষক আলোচনা সভা ও অতীশ দীপঙ্কর শান্তি পদক প্রদান অনুষ্ঠান রয়েছে। রাজধানীর মেরুল বাড্ডায় আন্তর্জাতিক বৌদ্ধবিহারে দিনব্যাপী অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে বুড্ডিস্ট ফেডারেশন। সকালে বুদ্ধপূজা ও সংঘদানের পর সন্ধ্যা সাতটায় প্রদীপপূজা ও শীল গ্রহণ শুরু হবে। সঙ্গে রয়েছে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। ধর্মমিত্র মহাথেরোর সভাপতিত্বে এতে উপস্থিত থাকবেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শাহজাহান মিয়া। মিরপুরে শাক্যমুনি বৌদ্ধবিহারেও দিনব্যাপী পিণ্ডদান, ধর্মালোচনা, প্রদীপপূজা, শীল গ্রহণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উদ্যাপিত হবে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন