বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

২০১৯ সালের পর এ বছর একসেস টু সিডস ইনডেক্স প্রতিবেদন প্রকাশ করা হলো।
এ সূচক তৈরিতে ছয়টি বিষয় বিবেচনায় নেওয়া হয়েছে। এগুলো সক্ষমতা তৈরি, বিপণন ও বিক্রি, বীজ উত্পাদন, গবেষণা ও উন্নয়ন, জিনগত সম্পদ এবং মেধাস্বত্ব ব৵বস্থাপনা, সুশাসন ও কৌশল—এ ছয়টি ক্ষেত্রে ১০০ নম্বরে লাল তীর সিডস পেয়েছে ৫৯ দশমিক ২ নম্বর। কোম্পানি সবচেয়ে ভালো করেছে বীজ উত্পাদনে।

এ বিষয়ে লাল তীর সিডস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাহবুব আনাম বলেন, বীজ সূচকে বাংলাদেশি কোম্পানি হিসেবে লাল তীরের এই অবস্থান অবশ্যই গৌরবের। গত কয়েক দশক দেশের বীজ শিল্পের উন্নয়নে যে অবদান লাল তীর রেখেছে, তার স্বীকৃতি এটা। বৈশ্বিকভাবে দেশের প্রতিনিধিত্ব করতে পারা লাল তীরের জন্য কৃষকের আস্থা প্রতিষ্ঠিত হবে।

বীজ সূচকের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মাল্টিমোড গ্রুপের অন্যতম সহপ্রতিষ্ঠান লাল তীর সিডস লিমিটেড ১৯৯৫ সালে যৌথভাবে প্রতিষ্ঠা করা হয়। এর আগের নাম ছিল ইস্ট-ওয়েস্ট সিড বাংলাদেশ লিমিটেড। ২০০৭ সালে লাল তীর সিড নামে যাত্রা শুরু করে। সবজিবীজের প্রবক্তা হিসেবে দেশে লাল তীরের সুনাম রয়েছে। ২০১০ সাল থেকে ধানবীজের উত্পাদন ও বিপণন কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন