দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত খুলনা-যশোর অঞ্চলের রাষ্ট্রায়ত্ত আটটি পাটকলের শ্রমিকেরা আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় খুলনার খালিশপুরের বিআইডিসি রোডে ক্রিসেন্ট জুট মিলের সামনে শ্রমিকদের এক সভা থেকে এ ঘোষণা দেওয়া হয়।
পাট খাতে প্রয়োজনীয় অর্থ বরাদ্দ, বকেয়া মজুরি পরিশোধ, ২০ শতাংশ মহার্ঘ ভাতাসহ পাঁচ দফা দাবি আদায়ে খুলনা-যশোর অঞ্চলের রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকলের সিবিএ-নন সিবিএ ঐক্য পরিষদ ঘোষিত বিক্ষোভ কর্মসূচির গতকাল ছিল তৃতীয় দিন।
ঐক্য পরিষদের আহ্বায়ক সোহরাব হোসেন বলেন, পরিষদের পক্ষ থেকে পরবর্তী কর্মসূচি হিসেবে জেলা প্রশাসক বরাবর স্মারকলিপি প্রদান এবং সপ্তাহজুড়ে কলগুলোতে প্রতি পালায় বিক্ষোভ মিছিলের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তিনি আরও বলেন, ‘এর পরও সরকার যদি আমাদের সঙ্গে আলোচনায় না বসে, যদি কোনো ইতিবাচক সাড়া আমরা না পাই, তাহলে ঢাকা, চট্টগ্রাম ও রাজশাহী অঞ্চলের শ্রমিকদের নিয়ে যৌথ আন্দোলনে যাব।’
শ্রমিকদের অন্য দুটি দাবি হচ্ছে বদলি শ্রমিকদের স্থায়ীকরণ ও যথাযথ মজুরি নির্ধারণে পে-কমিশনের মতো মজুরি কমিশন গঠন।
খুলনা-যশোর অঞ্চলের রাষ্ট্রায়ত্ত নয়টি পাটকলে কর্মরত শ্রমিকের সংখ্যা প্রায় ৩০ হাজার। এর মধ্যে ১৮ হাজারের মতো স্থায়ী শ্রমিক রয়েছেন। বাকিরা বদলি হিসেবে কাজ করছেন। আন্দোলনরত পাটকলগুলো হচ্ছে খালিশপুরের ক্রিসেন্ট, প্লাটিনাম, খালিশপুর জুট মিল, দীঘলিয়ার স্টার, আটরা শিল্প এলাকার আলীম, ইস্টার্ন, নওয়াপাড়া শিল্প এলাকার জেজেআই ও কার্পেটিং জুট মিল।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন