রাজশাহী নগরের রায়পাড়া এলাকায় আমবাগান ধ্বংস করে রাজশাহী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (আরডিএ) আবাসন প্রকল্প গ্রহণের প্রতিবাদে গতকাল মঙ্গলবার বিক্ষোভ সমাবেশ, মানববন্ধন ও বন মন্ত্রণালয়ে স্মারকলিপি দেওয়া হয়েছে। তবে আরডিএ বলছে, তারা গাছ রেখেই প্লট করার চেষ্টা করবে। বেলা ১১টায় নগরের সাহেব বাজার জিরো পয়েন্টে বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) ও রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদ এ কর্মসূচি পালন করে। পরে তারা জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে বন ও পরিবেশ মন্ত্রণালয়ে স্মারকলিপি পেশ করে।
মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে আরডিএ কর্তৃপক্ষকে হুঁশিয়ার করে বলা হয়, ব্যক্তিমালিকানাধীন শত বছরের আমবাগান অধিগ্রহণ করে আবাসন প্রকল্পের যে পরিকল্পনা করা হয়েছে তা থেকে সরে না এলে মানুষের সম্পদ ও পরিবেশ রক্ষার স্বার্থে বৃহত্তর আন্দোলন কর্মসূচি গড়ে তোলা হবে। প্রয়োজনে রাজশাহীর ঐতিহ্যবাহী আমবাগান রক্ষায় লাগাতার ধর্মঘটের ডাক দেওয়া হবে। মানববন্ধন চলাকালে বক্তারা বলেন, নগরের পশ্চিমাঞ্চলে রায়পাড়া এলাকায় ৪০ বিঘা জমির ওপর অন্তত চার শতাধিক আমগাছ রয়েছে। বিশাল এ বাগান ধ্বংস করে সম্প্রতি আরডিএ কর্তৃপক্ষ সেখানে আবাসিক প্রকল্প গ্রহণ করেছে। এখানে প্রায় ১০০ বছরেরও পুরোনো আমগাছ রয়েছে। অথচ আরডিএর একশ্রেণীর কর্মকর্তা-কর্মচারী বাগান ধ্বংস করে আবাসিক প্রকল্প গ্রহণ করেছে।
রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ও বাপা রাজশাহী মহানগর কমিটির সমন্বয়ক জামাত খানের সভাপতিত্বে মানববন্ধন চলাকালীন বিক্ষোভ সমাবেশে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের সভাপতি লিয়াকত আলী, পরিবেশ আইনজীবী সমিতি বেলার সমন্বয়ক তন্ময় সান্যাল, শাহাবুল আলম, দেবাশিষ প্রামাণিক, তবিবুর রহমান, রজব আলী, জাহাঙ্গীর হোসেন, আইয়ুব আলী তালুকদার, সুভাষ চন্দ্র হেম্ব্রম ও শাহানাজ পারভীন প্রমুখ।
আরডিএর অথরাইজড অফিসার আবুল কালাম আজাদ বলেন, রায়পাড়ায় আবাসন প্রকল্পটি ইতিমধ্যে অনুমোদিত হয়েছে। অধিগ্রহণ শুরু হবে। গাছ কেটে ওই প্রকল্প করার ব্যাপারে তিনি বলেন, তাঁরা গাছ রেখেই প্রকল্পের প্লট করার চেষ্টা করবেন। যাঁরা প্লট পাবেন তাঁরা গাছসহ পাবেন। আর রাস্তার জন্য যদি দু-একটি গাছ কাটতে হয় সঙ্গে সঙ্গে গাছের পরিবর্তে গাছ লাগানো হবে। প্রকল্পের মধ্যে তাদের বৃক্ষরোপণ কর্মসূচিও রয়েছে।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন