default-image

টাঙ্গাইল শহরের কয়েকটি জায়গায় আজ বৃহস্পতিবার থেকে তিন দিনের জন্য ১৪৪ ধারা জারি করেছে প্রশাসন। সাবেক সাংসদ আমানুর রহমান খান রানার বড় ভাই আমিনুর রহমান খান বাপ্পীর মৃত্যুবার্ষিকী পালনের কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা সৃষ্টির পর প্রশাসন এ ব্যবস্থা নিয়েছে। আমানুরদের বিরুদ্ধে আজ থেকে তিন দিন মিছিল-সমাবেশের পাল্টা কর্মসূচি ঘোষণা করে আওয়ামী লীগে তাঁদের বিরোধীরা।

আমানুর ও তাঁর অন্য তিন ভাই জেলা আওয়ামী লীগ নেতা ফারুক হত্যা মামলার আসামি। জেলা আওয়ামী লীগে আমানুরের পরিবারের খুব শক্তিশালী অবস্থান ছিল। তবে ফারুক হত্যার পর আওয়ামী লীগের একটা বড় অংশ আমানুর ও তাঁর ভাইদের কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়।

গতকাল বুধবার রাতে টাঙ্গাইল শহরের শহীদ স্মৃতি পৌর উদ্যান, শহীদ মিনার, পুরাতন বাসস্ট্যান্ড এবং শহরের প্রধান প্রধান সড়কে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়। আমানুরের ভাইয়ের মৃত্যুবার্ষিকী পালনকে কেন্দ্র করে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি অবনতির আশঙ্কায় প্রশাসন এ ব্যবস্থা নেয়।

অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. শহিদুল্লাহ শহরে মাইকিং করে জানান, আজ, আগামীকাল শুক্র ও পরদিন শনিবার ভোর পাঁচটা থেকে সন্ধ্যা সাতটা পর্যন্ত ১৪৪ ধারা বলবৎ থাকবে।

আজ সকাল থেকেই শহরের নিরালার মোড়, পুরাতন বাসস্ট্যান্ড, কলেজ গেট, ডিস্ট্রিক গেট, নতুন বাসস্ট্যান্ড, বটতলা, মেইন রোড, বেবিস্ট্যান্ড, শান্তিকুঞ্জ মোড়সহ গুরুত্বপূর্ণ স্থানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। শহরের বেশির ভাগ প্রবেশদ্বারে পুলিশ চেকপোস্ট বসিয়ে যানবাহনে তল্লাশি করে।

টাঙ্গাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর মোশারফ হোসেন জানান, দুই পক্ষের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচির কারণে সংঘর্ষের সম্ভাবনা আছে। যে কারণে প্রশাসনের পক্ষ থেকে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়। জনগণের জানমালের নিরাপত্তার স্বার্থে শহরে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

১৪৪ ধারা জারির কারণে আমিনুর রহমান খানের স্মরণে শোক র‌্যালি হতে পারেনি। সকালে সাবেক সাংসদ আমানুর রহমান খানের নেতৃত্বে তাঁদের পরিবারের সদস্যরা বাপ্পী স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। পরে টাঙ্গাইল কবরস্থানে বাপ্পীর কবর জিয়ারত করা হয়। অন্য পক্ষও মিছিল-সমাবেশ করেনি।

২০০৩ সালের ২১ নভেম্বর সন্ত্রাসী হামলায় নিজ বাড়ির কাছেই খুন হন জেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক আমিনুর। তিনি সাবেক সাংসদ আমানুরের বড় ভাই এবং টাঙ্গাইল-৩ (ঘাটাইল) আসনের বর্তমান সাংসদ আতাউর রহমান খানের ছেলে। মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে এবার ‘শহীদ আমিনুর রহমান খান বাপ্পী স্মৃতি সংসদের’ ব্যানারে আমানুরদের পরিবার বিভিন্ন কর্মসূচি হাতে নেয়। কর্মসূচির মধ্যে ছিল বৃহস্পতিবার সকালে কবর জিয়ারত, বাপ্পী স্মৃতি স্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও শোক র‌্যালি এবং শুক্রবার বিকেলে শহীদ মিনারে আলোচনা সভা।

খান পরিবারবিরোধী অংশের নেতা জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুজ্জামান সোহেল জানান, বাপ্পীর মৃত্যুবার্ষিকীর এ কর্মসূচির মধ্য দিয়ে খান পরিবার তাদের অনুসারী সন্ত্রাসীদের আবার একত্র করার তৎপরতায় ছিল। এরা টাঙ্গাইলকে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে আবার অস্থিতিশীল করে তুলতে চাইছে। তাদের এই সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের নীলনকশা রুখতেই বৃহস্পতিবার থেকে তিন দিন পাল্টা কর্মসূচি হাতে নেওয়া হয়।

টাঙ্গাইলে আওয়ামী রাজনীতিতে একসময় একক প্রভাব বিস্তারকারী খান পরিবারের চার ছেলে—সাবেক সাংসদ আমানুর রহমান খান, সাবেক পৌর মেয়র সহিদুর রহমান খান , ব্যবসায়ী নেতা জাহিদুর রহমান খান ও কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি সানিয়াত খানের বিরুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধা ফারুক আহমেদ হত্যা মামলায় অভিযোগ ওঠে। ২০১৪ সালে তাঁরা টাঙ্গাইল ত্যাগ করেন। ২০১৬ সালে আমানুর আদালতে আত্মসমর্পণ করেন। ৩৬ মাস হাজতবাসের পর তিনি গত জুলাই মাসে জামিন পান। অন্য তিন ভাই এখনো পলাতক।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0