default-image


সরকারের ‘আমার গ্রাম আমার শহর’ প্রকল্পটি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে একটি কারিগরি প্রকল্প তৈরি করেছে স্থানীয় সরকার বিভাগ। এর আওতায় ১৫টি গ্রামকে পাইলট প্রকল্প হিসেবে বেছে নেওয়া হয়েছে। এ প্রকল্প বাস্তবায়নে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সমন্বয়ে গুচ্ছভিত্তিক কমিটি গঠন করার কথা বলেছেন স্থানীয় সরকারমন্ত্রী তাজুল ইসলাম।

আজ বুধবার সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে এ প্রকল্প নিয়ে একটি সভা অনুষ্ঠিত হয়। এটি এ প্রকল্পের মাধ্যমে দেশের প্রতিটি গ্রামে আধুনিক সুযোগ-সুবিধা সম্প্রসারণে কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়নে গঠিত আন্তমন্ত্রণালয় কমিটির দ্বিতীয় সভা।

সভা শেষে মন্ত্রী বলেন, ‘আমার গ্রাম আমার শহর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার একটি দর্শন। এ দর্শন বাস্তবায়নের জন্য যে সকল মন্ত্রণালয়ের কাজের ধরনের মিল আছে, সেগুলোর জন্য ভিন্ন ভিন্ন প্রকল্প প্রয়োজন। এই কমিটিগুলো নিয়মিত সভা করে নিজেদের পরবর্তী করণীয় ঠিক করবে এবং সিদ্ধান্তগুলো কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়ন কমিটির সভাপতির কাছে উপস্থাপন করবে।’

বিজ্ঞাপন

তাজুল ইসলাম বলেন, ‘গ্রামে শহরের সুযোগ-সুবিধা দিতে হলে সকলকে সমন্বয় করে কাজ করতে হবে। বিভিন্ন মন্ত্রণালয় গ্রামে উন্নত নাগরিক সেবা পৌঁছে দিতে কাজ করছে। আমার গ্রাম আমার শহর বাস্তবায়নে সব মন্ত্রণালয়ের চলমান প্রকল্পের পাশাপাশি আর কী কী প্রকল্প নিতে হবে, গুচ্ছ কমিটি তা নির্ধারণ করবে। এর ফলে আমার গ্রাম আমার শহর বাস্তবায়নে কাজে গতি আসবে। গত সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, সংশ্লিষ্ট সব মন্ত্রণালয় তাদের উন্নয়ন প্রকল্প পাঠিয়েছে। তবে এসব প্রকল্পের সবগুলো আমার গ্রাম আমার শহর দর্শনের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য নয়।’

গ্রামে কী ধরনের সুবিধা পৌঁছে দেওয়া হবে, তা জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, ‘গ্রামগুলোতে বিদ্যুৎ যাবে, সুপেয় পানির ব্যবস্থা থাকবে, আধুনিক পয়োনিষ্কাশন ব্যবস্থা, উন্নত শিক্ষা, স্বাস্থ্য, যোগাযোগব্যবস্থা হবে, কৃষি ব্যবস্থাপনা আধুনিকায়ন হবে এবং লাভজনক হবে। এ ছাড়া কর্মসংস্থান তৈরি, ব্যাংকিং ব্যবস্থার সম্প্রসারণ, বাজার ব্যবস্থাপনা আধুনিকায়ন করা হবে। সামগ্রিকভাবে একটি উন্নত জীবনযাত্রার জন্য যে ব্যবস্থাপনা মানুষের জন্য প্রয়োজন, সেগুলো সবকিছুই সেখানে করা হবে।’

মন্ত্রী আরও বলেন, ‘মন্ত্রণালয়গুলো থেকে আসা একাধিক প্রস্তাব মূল্যায়ন করে দেখা গেছে, অনেক প্রস্তাবই “আমার গ্রাম, আমার শহর” প্রতিপাদ্যের সঙ্গে সংগতিপূর্ণ নয়। এসব নিয়ে আরও আলোচনার প্রয়োজন।’

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য বলেন, ‘বিভিন্ন উপকমিটি বিভিন্ন স্তরে দায়িত্ব পালনের মাধ্যমে সমন্বিত উদ্যোগ গ্রহণ করবে। ইতিমধ্যে দুই বছর পার করেছি। বাকি সময়ের মধ্যে আশা করি, আমার গ্রাম আমার শহর উদ্যোগটি দৃশ‍্যমান হবে।’

স্থানীয় সরকার বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব, অন্যান্য মন্ত্রণালয়ের সচিব, অতিরিক্ত সচিব, এলজিইডি ও ডিপিএইচইর প্রধান প্রকৌশলীসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা সভায় উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন