বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ঢাকা মহানগর পুলিশের কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম বিভাগের পরিদর্শক নাজমুল নিশাত ৩ অক্টোবর ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) আদালতে ওই তিনজনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র জমা দেন। তাঁদের বিরুদ্ধে তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি আইনের (আইসিটি) ৫৭ ধারা ও ৬৬ ধারায় অভিযোগ আনা হয়েছে।

আল ইহসান সম্পাদক মামলায় লীনা হক নামের আরেক নারীর বিরুদ্ধেও অভিযোগ করেছিলেন। তবে তাঁর পূর্ণাঙ্গ নাম–পরিচয় জানতে না পারায় মামলা থেকে তাঁকে অব্যাহতি দেওয়ার আবেদন করা হয়েছে।

অভিযোগপত্রে তসলিমাসহ তিনজনের বিরুদ্ধে ইন্টারপোলের মাধ্যমে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির আবেদন করেছেন পুলিশ কর্মকর্তা নাজমুল নিশাত।

অভিযোগপত্রে বলা হয়েছে, উইমেন চ্যাপ্টারে ২০১৮ সালে তসলিমা নাসরিনের ‘ধর্ষকের কাছে নারীর কোনো ধর্ম নেই’ শিরোনামে একটি লেখা প্রকাশিত হয়। পরে তা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে শেয়ার হয়। এ ঘটনায় মাসিক আল-বাইয়্যিনাত ও দৈনিক আল ইহসানের সম্পাদক মাহবুব আলম বাদী হয়ে ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনালে ২০১৮ সালের ১৯ এপ্রিল তসলিমা নাসরিনসহ চারজনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। আদালত আসামিদের বিরুদ্ধে মামলাটি এজাহার হিসেবে রেকর্ড করার জন্য শাহজাহানপুর থানাকে নির্দেশ দেন।

পুলিশের দেওয়া অভিযোগপত্রে বলা হয়েছে, আসামিরা অনলাইনে নিজেদের বিভিন্ন লেখা প্রকাশ এবং সেগুলো ছড়িয়ে দেওয়ার মাধ্যমে ধর্মীয় সম্প্রীতি ক্ষুণ্ন করার অভিপ্রায়ে লিপ্ত রয়েছেন।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন