আশ্রয়কেন্দ্র খোলা হলেও মানুষকে সেখানে নিতে বেগ পেতে হচ্ছে। এ ছাড়া নির্দেশ থাকা সত্ত্বেও কিছু কিছু মাছ ধরার ট্রলার নিরাপদ অবস্থানে ফেরেনি। গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় চট্টগ্রামে জেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সভায় এ কথা বলা হয়।
সার্কিট হাউসের সম্মেলনকক্ষে অনুষ্ঠিত জরুরি এই সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক মেজবাহ উদ্দিন। সভায় সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন দপ্তরের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।
সভায় জেলা প্রশাসক বলেন, ৭ নম্বর বিপৎসংকেত দেওয়ার পর লোকজনকে নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে নেওয়ার উদ্যোগ নিতে প্রতিটি উপজেলা প্রশাসনকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। জেলায় মোট ৪৭৯টি আশ্রয়কেন্দ্র খোলা হয়েছে। তবে আশঙ্কার কথা হচ্ছে, লোকজন বাড়িঘর ছেড়ে আসতে চাচ্ছে না। তিনি বলেন, ‘মেয়র মহোদয় (আ জ ম নাছির উদ্দীন) আমাকে পতেঙ্গা থেকে ফোন করে একটু আগে বললেন, লোকজন ফিরছে না। আমরা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান এবং কাউন্সিলরদের মাধ্যমে লোকজনকে সরিয়ে আনার চেষ্টায় আছি।’
জেলা প্রশাসক বলেন, ‘সাগরে এখনো অনিরাপদ অবস্থায় কিছু কিছু মাছ ধরার নৌকা রয়ে গেছে। আমরা সংশ্লিষ্ট নির্বাহী কর্মকর্তাদের (ইউএনও) সেগুলোকে ওখান থেকে সরিয়ে আনতে উদ্যোগ নিতে বলেছি।’
সভায় বলা হয়, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির মাধ্যমে আশ্রয়কেন্দ্রে যাওয়া লোকজনের খাবারের ব্যবস্থা করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া ভারী বৃষ্টিতে পাহাড়ধসের আশঙ্কায় নগর ও জেলার বিভিন্ন স্থানে পাহাড়ে ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় বসবাসকারীদের নিরাপদে সরিয়ে নেওয়ার উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0