আ.লীগ ১৩টিতে, ১৭টিতে বিএনপি জোট সমর্থিতরা জয়ী

বিজ্ঞাপন

চতুর্থ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের প্রথম ধাপে আজ বুধবার ৯৭টি উপজেলায় ভোট গ্রহণ শেষে চলছে ভোট গণনা।এখন পর্যন্ত ৩২টি উপজেলার বেসরকারি ফলাফল পাওয়া গেছে।এর মধ্যে ১৩টিতে আওয়ামী লীগ, ১১টিতে বিএনপি এবং ছয়টিতে জামায়াত-সমর্থিত প্রার্থীরা জয়ী হয়েছেন।এছাড়াও দুটিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী জয়ী হয়েছেন।

বরিশাল

গৌরনদীতে উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছে আওয়ামী লীগ-সমর্থিত শাহ আলম।তিনি বিএনপি-সমর্থিত আবুল হোসেনকে হারিয়েছেন।

মাগুরা

সদর উপজেলায় বিএনপি-সমর্থিত নাজিম উদ্দিন আহমেদ বেসরকারিভাবে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন।নাজিম উদ্দিন আওয়ামী লীগ-সমর্থিত পঙ্কজ কুমার কুন্ডুকে হারিয়েছেন।

পাবনা

সাথিয়ায় জামায়াত-সমর্থিত মোকলেছুর রহমান বেসরকারিভাবে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন।তিনি আ. লীগ-সমর্থিত মঞ্জুর এলাহীকে হারিয়েছেন।

পঞ্চগড়

বিএনপি বিদ্রোহী প্রার্থী আব্দুর গণি বসুনিয়াকে হারিয়েছে দেবীগঞ্জ উপজেলার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগ-সমর্থিত হাসানাত জামান চৌধুরী।

আটোয়ারী উপজেলায় বিএনপি-সমর্থিত আব্দুর রহমান আওয়ামী-সমর্থিত তৌহিদুল ইসলামকে হারিয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

বোদা উপজেলায় জামায়াত-সমর্থিত শফিউল্লাহ শফি আওয়ামী-সমর্থিত ফারুক আলমকে হারিয়ে বেসরকারিভাবে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন।

রাজবাড়ী
বালিয়াকান্দি উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ-সমর্থিত প্রার্থী আবুল কালাম আজাদ বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।বিএনপি-সমর্থিত শওকত হোসেনকে তিনি হারিয়েছেন।

নীলফামারী

জলঢাকায় জামায়াত-সমর্থিত প্রার্থী সৈয়দ আলী বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন আওয়ামী লীগ-সমর্থিত শহিদ হোসেন রুবেল।

পাবনা

সাথিয়ায় জামায়াত-সমর্থিত মোকলেছুর রহমান বেসরকারিভাবে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি আ. লীগ-সমর্থিত মঞ্জুর এলাহীকে হারিয়েছেন।

পঞ্চগড়

বিএনপি বিদ্রোহী প্রার্থী আব্দুর গণি বসুনিয়াকে হারিয়েছে দেবীগঞ্জ উপজেলার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগ-সমর্থিত হাসানাত জামান চৌধুরী।

আটোয়ারী উপজেলায় বিএনপি-সমর্থিত আব্দুর রহমান আওয়ামী-সমর্থিত তৌহিদুল ইসলামকে হারিছে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

বোদা উপজেলায় জামায়াত-সমর্থিত শফিউল্লাহ শফি আওয়ামী-সমর্থিত ফারুক আলমকে হারিয়ে বেসরকারিভাবে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন।

রাজবাড়ী

বালিয়াকান্দি উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ-সমর্থিত প্রার্থী আবুল কালাম আজাদ বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।বিএনপি-সমর্থিত শওকত হোসেনকে তিনি হারিয়েছেন।

নীলফামারী

জলঢাকায় জামায়াত-সমর্থিত প্রার্থী সৈয়দ আলী বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন আওয়ামী লীগ-সমর্থিত শহিদ হোসেন রুবেল।

নেত্রকোনা

কেন্দুয়া উপজেলায় বিএনপি-সমর্থিত মো. দেলোয়ার হোসেন ভূইয়া আওয়ামী লীগ সমর্থিত মো. আসাদুল হক ভূইয়াকে হারিয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন।

গোপালগঞ্জ

স্বতন্ত্র প্রার্থী জানে আলম বিরু (মোটরসাইকেল) বেসরকারিভাবে কাশিয়ানী উপজেলার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন।তিনি সুব্রত ঠাকুরকে (টেলিফোন) হারিয়েছেন।

মুকসুদপুর উপজেলায় চেয়ারম্যান হয়েছেন আশরাফুল আলম (দোয়াত কলম)।তিনি কাবির মিয়াকে (আনারস) হারিয়েছেন।

মাগুরা

শ্রীপুর উপজেলায় বেসরকারিভাবে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন বিএনপি-সমর্থিত বদরুল আলম।তিনি আওয়ামী লীগ-সমর্থিত হুমায়ুনুর রশীদ মুহিতকে হারিয়েছেন।

পঞ্চগড়

সদর উপজেলার আওয়ামী লীগ-সমর্থিত আনোয়ার সাদাত হারিয়েছেন বিএনপি-সমর্থিত প্রার্থী আবু দাউদ প্রধানকে।

কুষ্টিয়া অফিস

কুষ্টিয়া সদর উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে জাকির হোসেন সরকার (আনারস) নির্বাচিত হয়েছেন।বিএনপি-সমর্থিত এই প্রার্থী আওয়ামী লীগ-সমর্থিত এ এফ এম আমিনুল হক রতনকে হারিয়েছেন।

বিএনপি-সমর্থিত প্রার্থী তৌহিদুল ইসলাম আলম আওয়ামী লীগ-সমর্থিত প্রার্থী আবু বক্কর সিদ্দিককে হারিয়ে ভেড়ামারা উপজেলায় বেসরকারিভাবে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন।

সুনামগঞ্জ

দক্ষিন সুনামগঞ্জ উপজেলা পরিষদে আওয়ামী লীগ-সমর্থিত প্রার্থী আবুল বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি বিএনপি-সমর্থিত ফারুক আহমদকে হারিয়েছেন।

দোয়ারাবাজার উপজেলার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগের ইদ্রিস আলী। তিনি বর্তমান চেয়ারম্যান জামায়াত সমর্থিত আব্দুল কুদুদুসকে হারিয়েছেন।

পাবনা

সুজানগর উপজেলা নির্বাচনে আ. লীগের আবুল কাশেম ৮০ হাজার ৫৮৬ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির হাজারী জাকির হোসেন ১৫ হাজার ১০৫ ভোট পেয়েছেন। ভোট শুরু হওয়ার পর হাজারী নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দিয়েছিলেন।

পাবনা

আটঘড়িয়া উপজেলায় পরিষদে জামায়াত-সমর্থিত জহুরুল ইসলাম বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।তিনি আওয়ামী লীগ-মসর্থিত শহীদুল ইসলামকে হারিয়েছেন।

খাগড়াছড়ি

মানিকছড়িতে আওয়ামী লীগ সমর্থিত ব্র্যাক মারমা জয়ী হয়েছেন।তিনি বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী রবিউল ফারুককে হারিয়েছেন।

দিনাজপুর

বিএনপি-সমর্থিত প্রার্থী মামুনুর রশীদ চৌধুরী মামুন কাহারোল উপজেলার চেয়ারম্যান হিসেবে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।তার নিকটতম আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী গোপেশ চন্দ্র।

কিশোরগঞ্জ

করিমগঞ্জ উপজেলায় বিএনপি-সমর্থিত প্রার্থী সাইফুল ইসলাম সুমন বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।তিনি আওয়ামী লীগ-সমর্থিত নাসিরুল ইসলাম খান আওলাদকে হারিয়েছেন।

কিশোরগঞ্জ

নিকলী উপজেলায় আওয়ামী লীগ-সমর্থিত সাইফুল ইসলাম বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।তিনি বিএনপি-সমর্থিত বদরুল মোমেনকে হারিয়েছেন।

খাগড়াছড়ি

রামগড় উপজেলায় বিএনপি সমর্থিত শহীদুল ইসলাম ভুইয়া জয়ী হয়েছেন।

বগুড়া

দুপচাঁচিয়া উপজেলা নির্বাচনে ১৯-দলীয় জোট-সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী নির্বাচিত হয়েছেন।চেয়ারম্যান পদে জামায়াত নেতা আবদুল গনি মন্ডল (আনারস) ৫৮ হাজার ৬০৮ ভোট পেয়েছেন।নিকটতম প্রার্থী কল্যাণ প্রসাদ পোদ্দার (কাপ পিরিচ) পেয়েছেন ২৬ হাজার ৩৮৪ ভোট।

দিনাজপুর

খানসামা উপজেলার বর্তমান চেয়ারম্যান বিএনপি-সমর্থিত প্রার্থী শহীদুজ্জামান শাহ বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।তিনি আওয়ামী-সমর্থিত ওয়াকার্স পার্টির মো. মাহফুজার রহমান চৌধুরিকে হারিয়েছেন।

কিশোরগঞ্জ

বাজিতপুর উপজেলার বেসরকারি ফল পাওয়া গেছে। এ উপজেলায় আওয়ামী লীগ-সমর্থিত প্রার্থী ছরওয়ার আলম বিএনপি-সমর্থিত প্রার্থীকে প্রায় আট হাজার ভোটের ব্যবধানে পরাজিত করেছেন। আনারস প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করে ছরওয়ার আলম ৫০ হাজার ১৬০ ভোট পান। তাঁর নিকটতম কাউয়ুম খান কাপ-পিরিচ প্রতীকে নির্বাচন করে ৪২ হাজার ৩৯৪ ভোট পেয়েছেন।

খুলনা

কয়রা উপজেলায় নির্বাচিত হয়েছেন জামায়াতের আ খ ম তমিজউদ্দিন। তিনি ৫৩ হাজার ৬৯৫ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর নিকটতম আওয়ামী লীগ-সমর্থিত মহসিন রেজা পেয়েছেন ৩৪ হাজার ৩৭১ ভোট।

খুলনা

দীঘলিয়ায় আওয়ামী লীগ-সমর্থিত খান নজরুল ইসলাম ২২ হাজার ৩৬৬ ভোট পেয়েছেন। বিএনপির সাইফুর রহমান পেয়েছেন ২২ হাজার ২২৭ ভোট। তবে নজরুল ইসলাম ৪৯ কেন্দ্রের ফলে বিজয়ী হয়েছেন বলে দাবি করেছেন।

শরীয়তপুর

জাজিরা উপজেলায় বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগ-সমর্থিত মোবারক আলী সিকদার। তিনি পেয়েছেন ৪৩ হাজার ৬০৫ ভোট। তার নিকটতম বিএনপি-সমর্থিত নুরুল ইসলাম আজাদ ৯২২ ভোট পেয়েছেন।

ডামুড্যা উপজেলায় বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ-সমর্থিত আলমগীর হোসেন মাঝি। তিনি পেয়েছেন ২১ হাজার ১১৭ ভোট। তাঁর নিকটতম বিএনপি-সমর্থিত ফজলুল করিম মিয়া ১৩ হাজার ৩৬৮ ভোট পেয়েছেন।

এদিকে অসমির্থত সূত্রে জানা গেছে শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জে বিএনপি-সমর্থিত আনোয়ার হোসেন বেসরকাবিভাবে জয়ী হয়েছেন।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন