চৌধুরী নাঈম সরওয়ারের আইনজীবী আবুল হাসনাত প্রথম আলোকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

অভিযোগে বলা হয়েছে, ইভ্যালির বিজ্ঞাপন দেখে প্রতিষ্ঠানটি থেকে মোটরসাইকেলের ক্রয়াদেশ দিয়েছিলেন বাদী। এজন্য তিনি আসামিদের ১ লাখ ৬০ হাজার টাকা পরিশোধ করেন। কিন্তু মোটরসাইকেল সরবরাহ করতে না পারায় আসামিরা তাঁকে গত বছরের ১৪ অক্টোবর ১ লাখ ৬০ হাজার টাকার চেক দেন। পরে চেকটি ব্যাংক থেকে প্রত্যাখ্যাত হয়।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন