বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশন (বিপিসি) সূত্রে জানা গেছে, দাম বাড়ানোর পর বর্তমানে অভ্যন্তরীণ ফ্লাইটের জন্য প্রতি লিটার জেট ফুয়েল কিনতে খরচ হচ্ছে ১০০ টাকায়। আর আন্তর্জাতিক ফ্লাইটের জন্য নতুন দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ৮৮ টাকা।

এর আগে গত মাসেই এক দফা জেট ফুয়েলের দাম বাড়ানো হয়। গত ৮ মার্চ প্রতি লিটার ৮০ টাকা থেকে বেড়ে হয় ৮৭ টাকা। তার ১ মাস আগেই ৯ ফেব্রুয়ারি জ্বালানিটির দাম ৭৩ টাকা থেকে ৮০ টাকা করা হয়েছিল। গত বছরের ডিসেম্বর ও আগস্টেও দাম বাড়ানো হয়েছিল। ২০২১ সালের এপ্রিলে জেট ফুয়েলের দাম ছিল লিটারপ্রতি ৬১ টাকা।

অ্যাভিয়েশন বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ফ্লাইট পরিচালনা ব্যয়ের একটা বড় অংশ নির্ভর করে জেট ফুয়েলের দামের ওপর। জেট ফুয়েলের দাম বাড়লে এয়ারলাইনস পরিচালনার খরচও বেড়ে যায়। এর জেরে বাড়ে টিকিটের দাম।

অ্যাভিয়েশন অপারেটরস অ্যাসোসিয়েশনের উপদেষ্টা এ টি এম নজরুল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, জেট ফুয়েলের দাম এবার একবারে ১৩ টাকা বাড়ল। শেষ এমন হারে দাম বেড়েছিল ২০০৮ সালের দিকে। এভাবে দাম বাড়ার ফলে সবচেয়ে বেশি প্রভাব পড়বে দেশের অভ্যন্তরীণ গন্তব্যগুলোতে।

জেট ফুয়েলের দাম বাড়ার একটি দীর্ঘমেয়াদি প্রভাব আছে উল্লেখ করে এ টি এম নজরুল ইসলাম বলেন, দেশি এয়ারলাইনসগুলো বিদেশি এয়ারলাইনসগুলোর সঙ্গে প্রতিযোগিতায় পেরে উঠবে না। আর জ্বালানির দাম বাড়ার প্রভাবটা শেষ পর্যন্ত যাত্রীদের ঘাড়েই পড়বে।

কাজের সূত্রে প্রায়ই ঢাকা থেকে কক্সবাজারে যেতে হয় সৈয়দ সামিউল বাশারকে। তিনি একটি বেসরকারি সংস্থায় কর্মরত। সামিউল বাশার প্রথম আলোকে বলেন, ‘সড়কপথে ঝক্কি ও সময় বাঁচাতে আকাশপথে যাওয়া-আসা করি। তবে যে হারে ভাড়া বাড়ছে, তাতে আবার সড়কপথেই ফিরতে হবে।’

জেট ফুয়েলের দামের সঙ্গে টিকিটের দামও বাড়ে উল্লেখ করে বেসরকারি বিমান সংস্থা ইউএস বাংলা এয়ারলাইনসের জনসংযোগ বিভাগের মহাব্যবস্থাপক কামরুল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, জেট ফুয়েলের দাম গত ৩ মাসে ২৫ টাকা বেড়েছে। আর গত ১৮ মাসে ৫৪ টাকা। এটা অস্বাভাবিক। জ্বালানির বাড়তি দাম সমন্বয় করতে হচ্ছে টিকিটের দাম বাড়িয়ে।

কামরুল ইসলাম বলেন, করোনা মহামারি শুরুর আগে ঢাকা থেকে যশোর গন্তব্যের টিকিটের দাম ছিল ২ হাজার ৭০০ টাকা। সেটি বেড়ে এখন ৪ হাজার ৮০০ টাকা হয়েছে। জেট ফুয়েলের মূল্যবৃদ্ধির লাগাম টেনে ধরা উচিত। নয়তো এ খাতে সরকারের প্রণোদনা দেওয়া উচিত। কারণ, এত বেশি খরচ দিয়ে ফ্লাইট পরিচালনা করতে গিয়ে দেশি এয়ারলাইনসগুলো বিদেশি এয়ারলাইনসের সঙ্গে পেরে উঠবে না।

আরেক বেসরকারি বিমান সংস্থা নভোএয়ার জানায়, সর্বশেষ দফায় জেট ফুয়েলের দাম বাড়ার পর ঢাকা থেকে যশোর ও বরিশাল গন্তব্যে এয়ারলাইনসটি প্রতি টিকিটে ৩০০ করে টাকা বাড়িয়েছে। আর চট্টগ্রাম, সিলেট, সৈয়দপুর ও কক্সবাজার গন্তব্যে প্রতি টিকিটে ৫০০ টাকা করে বাড়ানো হয়েছে।

নভোএয়ারের হেড অব সেলস অ্যান্ড মার্কেটিং মেসবাহ উল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, ‘জেট ফুয়েলের উচ্চমূল্যের কারণে আমরা ভাড়া বাড়াতে বাধ্য হচ্ছি। এর পরও ভাড়ার তুলনায় খরচ বাড়ছে। বাড়তি এ খরচের ফলে ক্ষতির মুখেও পড়তে হচ্ছে।’
জ্বালানির দাম কীভাবে কমিয়ে এয়ারলাইনস ব্যবসাকে সহযোগিতা করা যায়, সে বিষয়ে সরকারের পদক্ষেপ প্রত্যাশা করেন নভোএয়ারের এই কর্মকর্তা।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন