default-image

ঢাকার কেরানীগঞ্জে দুই শিশুসহ একই পরিবারের চারজনকে হত্যার দায়ে চার আসামির মৃত্যুদণ্ড বহাল রেখেছেন হাইকোর্ট। বিচারপতি সহিদুল করিম ও বিচারপতি মো. আখতারুজ্জামানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ আজ রোববার এ রায় দেন।

ডেথ রেফারেন্স (মৃত্যুদণ্ড অনুমোদন) ও দণ্ডাদেশের বিরুদ্ধে আসামিদের করা পৃথক আপিলের শুনানি শেষে এ রায় দেওয়া হয়। চার দণ্ডিত ব্যক্তি হলেন ডাকু সুমন, সিএনজি সুমন, নাসিরউদ্দিন ও জাকারিয়া ওরফে জনি।

ওই মামলায় ২০১৫ সালের ২৬ নভেম্বর ঢাকার জেলা ও দায়রা জজ আদালত রায় দেন। রায়ে চার আসামিকে মৃত্যুদণ্ড ও একজনকে খালাস দেওয়া হয়। এরপর ডেথ রেফারেন্স শুনানির জন্য হাইকোর্টে আসে। অন্যদিকে দণ্ডাদেশের বিরুদ্ধে আসামিরা জেল আপিল ও আপিল করেন। এসবের ওপর একসঙ্গে শুনানি নিয়ে রায় দেওয়া হলো।

বিজ্ঞাপন

আদালতে আসামিপক্ষে শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী ফজলুল হক খান ফরিদ, মো. হেলাল উদ্দিন মোল্লা, আলমগীর হোসেন ও মোহাম্মদ আলী। রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বশির আহমেদ, সঙ্গে ছিলেন সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল নির্মল কুমার দাস, সৈয়দা শবনম মুস্তারী ও মো. তারিকুল ইসলাম।

পরে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বশির আহমেদ প্রথম আলোকে বলেন, চার আসামি কারাগারে আছেন। আসামিদের বিরুদ্ধে অপরাধ সন্দেহাতীতভাবে প্রামাণিত হওয়ায় হাইকোর্ট ডেথ রেফারেন্স গ্রহণ করে আসামিদের করা পৃথক আপিল খারিজ করে রায় দিয়েছেন।

প্রাপ্ত তথ্যমতে, ২০১৪ সালের ২২ সেপ্টেম্বর দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের কদমপুরে সাজু, তাঁর স্ত্রী রঞ্জি, তাঁদের সাত বছরের ছেলে ইমরান ও দুই বছরের মেয়ে সানজিদাকে পিটিয়ে ও শ্বাস রোধ করে হত্যা করেন আসামিরা। ভাড়া বাসা থেকে দুদিন পর তাঁদের লাশ উদ্ধার করা হয়।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন