default-image

রাজধানীর বনানীর এফ আর টাওয়ার নির্মাণে ইমারত বিধিমালা লঙ্ঘন এবং নকশা জালিয়াতির মামলায় রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (রাজউক) সাবেক চেয়ারম্যান হুমায়ূন খাদেমের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত। ঢাকার জ্যেষ্ঠ বিশেষ জজ কে এম ইমরুল কায়েস মঙ্গলবার এই আদেশ দেন।

এফ আর টাওয়ার নির্মাণে নকশা জালিয়াতির মামলায় রাজউকের সাবেক চেয়ারম্যান হুমায়ূন খাদেমসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে দেওয়া অভিযোগপত্র আমলে নিয়েছেন আদালত। পলাতক থাকায় হুমায়ূন খাদেমের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়। জামিনে থাকা বাকি চার আসামি আদালতে হাজির ছিলেন।

হুমায়ূন খাদেমের বিরুদ্ধে দেওয়া গ্রেপ্তারি পরোয়ানা তামিল–সংক্রান্ত প্রতিবেদন আগামী ৫ মার্চের মধ্যে জমা দিতে বলেছেন আদালত।

গত ২৯ অক্টোবর রাজউকের সাবেক চেয়ারম্যানসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র জমা দেয় দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। অভিযোগপত্রভুক্ত পাঁচ আসামি হলেন জমির মালিক এস এম এইচ আই ফারুক, রূপায়ন গ্রুপের চেয়ারম্যান লিয়াকত আলী খান মুকুল, রাজউকের সাবেক চেয়ারম্যান হুমায়ূন খাদেম, সাবেক প্রধান প্রকৌশলী মো. সাইদুর রহমান ও সাবেক অথরাইজড অফিসার সৈয়দ মকবুল আহমেদ।

অভিযোগপত্রে বলা হয়, আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে ইমারত বিধিমালা লঙ্ঘন এবং নকশা জালিয়াতির মাধ্যমে ১৮ তলাবিশিষ্ট এফ আর টাওয়ার নির্মাণ করেন। ১৯৯০ সালে ১৫ তলা ভবন নির্মাণের জন্য রাজউকের অনুমোদন পান এস এম এইচ আই ফারুক। পরে ১৯৯৬ সালে ১৮ তলা ভবন নির্মাণের অনুমোদন চেয়ে সংশোধিত নকশা অনুমোদনের জন্য আবেদন করেন তিনি।

সংশোধিত নকশা ইমারত বিধিমালা অনুযায়ী না হওয়া এবং প্রস্তাবিত ভবনের উচ্চতা বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের বিধিনিষেধ অনুযায়ী অনুমোদনযোগ্য নয় বলে জানিয়ে দেওয়া হয়। এর এক মাসের মধ্যেই সংশোধিত ওই নকশা অনুমোদন করা হয়। এ কাজে অবৈধ লেনদেন হয়েছে বলে অভিযোগপত্রে বলা হয়।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন