এবারের ঈদযাত্রা স্বস্তিদায়ক হবে : সেতুমন্ত্রী

বিজ্ঞাপন
default-image

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, এবারের ঈদযাত্রা অন্যান্য বছরের চেয়ে অনেকটা স্বস্তি ও আরামদায়ক হবে। তিনি বলেন, ‘এ বছর ঈদে সড়ক কিংবা মহাসড়কে কোথাও যানজট হওয়ার আশঙ্কা নেই। রাস্তায় সমস্যা নেই, সমস্যা শুধু যানবাহনের শৃঙ্খলায়। যানবাহনে শৃঙ্খলা এলে আমার মনে হয় এবার ঢাকাসহ সারা দেশে কোথাও রাস্তায় যানজট হবে না।’

আজ শুক্রবার রাজধানীর গাবতলী বাস টার্মিনালে ঈদে ঘরমুখো যাত্রীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের বিরুদ্ধে পরিচালিত মোবাইল কোর্টের কার্যক্রম পরিদর্শন শেষে ওবায়দুল কাদের সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।

সেতুমন্ত্রী বলেন, এবার কিছুটা সমস্যা হবে গাজীপুর থেকে বিমানবন্দর সড়কে। এ রাস্তায় বিআরটিএর কাজ চলছে। গাজীপুরের মেয়র সেখানে ৩০০ স্বেচ্ছাসেবক নিয়োগ করবেন। সেখানে একটু অস্বস্তি হবে। এই অংশ ছাড়া বাংলাদেশের আর কোথাও সমস্যা হবে না। সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, গাজীপুর, টঙ্গী ও বিমানবন্দর সড়কে কোনো নির্মাণকাজ যদি সমস্যার সৃষ্টি করে, তাহলে ঈদের সময় সে কাজ প্রয়োজনে বন্ধ রাখা হবে।

মন্ত্রী বলেন, ঈদে যানজটমুক্ত পরিবেশে মানুষ যেন তাদের প্রিয়জনের সঙ্গে ঈদ করতে যেতে পারে, এ জন্য সরকারের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। তিনি বলেন, দূরপাল্লার যাত্রায় চাঁদাবাজি যেন না হয়, সে দিকে কঠোর নজরদারি রাখা হচ্ছে। চাঁদাবাজি বন্ধে ইতিমধ্যে পুলিশ, র‌্যাবসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। অভিযোগ ও সুনির্দিষ্ট প্রমাণ পেলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্ত্রী বলেন, ঈদের সময় যানবাহনে অতিরিক্ত ভাড়া নেওয়ার অভিযোগ পেলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সরকার তথা বিআরটিএ নির্ধারিত ভাড়ার বেশি টাকা নেওয়া যাবে না।

গাড়িচালক ও মালিকদের উদ্দেশে মন্ত্রী বলেন, গাড়ির চালকেরা রাস্তায় গাড়ি চালানোর সময় মোবাইল ফোনে কথা বলতে পারবেন না। তাঁরা যেন এ সময় মোবাইল ফোন ব্যবহার না করেন, সেদিকে নজর দিতে হবে। পরিবহন মালিকেরাও যেন নিয়মনীতি মেনে গাড়ি চালান।

গাবতলীতে বিআরটিসি এসি বাসে যাত্রীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করছে, সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘৮০০ টাকার ভাড়া ১৫০০ টাকা হবে, এটা হতে পারে না। চলতে পারে না। তার একটা সীমারেখা থাকা দরকার। মানুষের যেন কষ্ট না হয়, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। এসি টিকিটের ভাড়া যেন রিজনেবল থাকে। বিবেকের অনুশাসন যেন মানা হয়।’

এ সময় বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথোরিটির (বিআরটিএ) চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মশিয়ার রহমান, ঢাকা জেলা যানবাহন শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মো. আব্বাস উদ্দিন, বিআরটিএ’ ভিজিল্যান্স টিমের কর্মকর্তা আনিছুর রহমান, গাবতলী আন্তজেলা টার্মিনালের নেতা মো. রায়হানসহ সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর, পুলিশ, র‌্যাবের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন