২০২২ সালের শুরু থেকে এ পর্যন্ত কত বাংলাদেশিকে ভিসা দেওয়া হয়েছে—জানতে চাইলে ঈসা বিন ইউসুফ আল দুহাইলান বলেন, ‘এখন পর্যন্ত আমরা ছয় লাখের বেশি ভিসা দিয়েছি, যার সবটাই কর্মী ভিসা। এ ছাড়া ব্যবসায়ী ও পর্যটকদের জন্যও আমরা ভিসা দিচ্ছি। ভিসাপ্রার্থীদের চাপ সামলাতে গিয়ে আমাদের বেশ কষ্ট করতে হচ্ছে। প্রতিদিন ৮ থেকে ১০ হাজার ভিসা দেওয়া হচ্ছে। ভবিষ্যতে দৈনিক ভিসা দেওয়ার হার আরও বাড়ানোর পরিকল্পনা আছে।’

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশের সঙ্গে সৌদি আরবের সম্পর্কের বড় ক্ষেত্র হচ্ছে জনশক্তি রপ্তানি। এ প্রসঙ্গে সৌদি রাষ্ট্রদূত জানান, এখন পর্যন্ত মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন খাতে অন্তত ২৩ লাখ বাংলাদেশি কাজ করছেন। করোনা সংক্রমণের কারণে জনশক্তি রপ্তানি বন্ধ থাকলেও বাংলাদেশের কর্মীদের নিয়োগ থেমে থাকেনি।

এ বছরের ২৪ ফেব্রুয়ারি ঢাকায় সৌদি দূতাবাস ১২ হাজার ৩০০ ভিসা দিয়েছে, যা এখন পর্যন্ত এক দিনে দূতাবাসের ভিসা দেওয়ার নতুন রেকর্ড।

বিনিয়োগকারীদের দুয়ার খুলে দিতে পারে পদ্মা সেতু

সৌদি রাষ্ট্রদূত নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মাণের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাহসিকতার প্রশংসা করেন। তাঁর মতে, নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মাণের মতো বৈপ্লবিক সিদ্ধান্ত বাংলাদেশের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অর্জন। ঐতিহাসিক এই পদক্ষেপের ফলে বিদেশি বিনিয়োগকারীরা বাংলাদেশের ব্যাপারে তাদের দুয়ার খুলে দিতে পারে।

পদ্মা সেতু নির্মাণের ফলে বাংলাদেশের বৃহদায়তন প্রকল্পে সৌদি বিনিয়োগের বিষয়ে জানতে চাইলে ঈসা বিন ইউসুফ আল দুহাইলান বলেন, এর মধ্যেই অ্যাকুয়াসহ বেশ কয়েকটি স্বনামধন্য সৌদি প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশে ৫০০ থেকে ৬০০ কোটি ডলার বিনিয়োগ করেছে। বাংলাদেশের রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা ও বিনিয়োগবান্ধব পরিবেশ এরই মধ্যে সৌদি বিনিয়োগকারীদের আকৃষ্ট করেছে। সৌদি বিনিয়োগমন্ত্রীর নেতৃত্বে শিগগিরই সৌদি আরবের শীর্ষস্থানীয় ২২টি প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা বাংলাদেশ সফর করবেন।

আইএসবিরোধী সামরিক জোটপ্রধানের সফর

৪১টি দেশকে নিয়ে সৌদি আরবের নেতৃত্বাধীন আন্তর্জাতিক জঙ্গি সংগঠন আইএস ও সন্ত্রাসবাদবিরোধী সামরিক জোট আইএমসিটিসির (ইসলামিক মিলিটারি কাউন্টার টেররিজম কোয়ালিশন) অন্যতম সদস্য বাংলাদেশ। আগামী মাসে জোটের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মেজর জেনারেল মোহাম্মদ বিন সায়েদ আল–মোগধির বাংলাদেশ সফরের কথা রয়েছে।

সৌদি নেতৃত্বাধীন সামরিক জোটের প্রধান নির্বাহীর বাংলাদেশ সফর নিয়ে জানতে চাইলে ঈসা বিন ইউসুফ আল দুহাইলান বলেন, সৌদি জোটে যেসব দেশ যোগ দিয়েছিল, বাংলাদেশ তার অন্যতম। আসন্ন এই সফরের সময় সন্ত্রাসবাদ দমনে এক দেশ অন্য দেশকে কীভাবে সহযোগিতা করতে পারে, তা নিয়ে আলোচনা হবে।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন