default-image

তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেছেন, নিজস্ব কৃষ্টি লালন ও বিশ্ববাস্তবতার সঙ্গে তাল মিলিয়ে ওটিটি বা ‘ওভার দ্য টপ’ প্ল্যাটফর্ম নিয়ে বাস্তবভিত্তিক নীতি গ্রহণ করবে সরকার।

আজ বুধবার দুপুরে সচিবালয়ে ওটিটি প্ল্যাটফর্ম বিষয়ে বৈঠক শেষে তিনি সাংবাদিকদের এ কথা জানান।

তথ্যসচিব কামরুন নাহার, বাংলাদেশ টেলিভিশনের মহাপরিচালক হারুন অর রশীদ, চলচ্চিত্রকার অমিতাভ রেজা চৌধুরী, পিপলু খান, বিএফডিসির ব্যবস্থাপনা পরিচালক নুজহাত ইয়াসমিন, ফিল্ম আর্কাইভের মহাপরিচালক নিজামুল কবীর, চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক স. ম. গোলাম কিবরিয়া প্রমুখ বৈঠকে অংশ নেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের দেশে এবং সমগ্র পৃথিবীতে ওটিটি প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে বিনোদন, সিনেমা, নাটকসহ নানা কনটেন্ট রিলিজ করা একটি ক্রমবর্ধমান বাস্তবতা। এগুলো মানুষ যেকোনো জায়গা থেকে উপভোগ করতে পারে। মানুষের জন্য এটি একটি ইউজার-ফ্রেন্ডলি মাধ্যম হওয়ায় মানুষ ধীরে ধীরে ওটিটি প্ল্যাটফর্মে অনেক বেশি অভ্যস্ত হচ্ছে।’

বিজ্ঞাপন

বিভিন্ন দেশে ওটিটি প্ল্যাটফর্মকে নিয়মনীতির মধ্যে আনার জন্য উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে এবং অতি সম্প্রতি এ ধরনের বাস্তবতার পরিপ্রেক্ষিতে ভারতেও ওটিটি প্ল্যাটফর্মে যেকোনো কনটেন্ট নিয়মনীতির মাধ্যমে এবং সরকারকে জানিয়ে আপলোড করার জন্য একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে, জানান মন্ত্রী।

আজকের বৈঠক সম্পর্কে মন্ত্রী বলেন, ‘ওটিটি প্লাটফর্ম নিয়ে বাস্তবভিত্তিক নীতি গ্রহণ এবং দেশীয় উদ্যোক্তাদের কাজের সুযোগ তৈরি নিয়ে আলোচনা হয়েছে। আমাদের দেশে এখন অন্য দেশের ওটিটি প্ল্যাটফর্ম কাজ করছে, রেভিনিউ নিয়ে যাচ্ছে। যেহেতু এ দেশে জনপ্রিয় ওটিটি প্ল্যাটফর্ম সেভাবে নেই, আমাদের নির্মাতারাও বিদেশি প্ল্যাটফর্ম ব্যবহারে অনেক ক্ষেত্রে বাধ্য হচ্ছেন। আমরা চাই, এ দেশে বিশ্বমানের ওটিটি প্ল্যাটফর্ম গড়ে উঠুক, যা শুধু দেশের মানুষকেই বিনোদন দেবে না, অন্য দেশ থেকেও যাতে আমরা আয় করতে পারি, তেমন ওটিটি প্ল্যাটফর্ম আমরা করব।’

একই সঙ্গে আমাদের কৃষ্টি-সংস্কৃতির সঙ্গে সাংঘর্ষিক কোনো কনটেন্ট যাতে আপলোড না হয়, তরুণসমাজকে বিভ্রান্ত বা বিপথগামী করতে না পারে; বরং দেশ, সমাজ ও তরুণদের মনন গঠনে, দেশকে স্বপ্নের ঠিকানায় নিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে যাতে এই প্ল্যাটফর্মগুলো কাজ করতে পারে, সে জন্য এটিকে নিয়মনীতির মধ্যে আনতে শিগগিরই বড় কমিটি করে দেওয়ার কথা জানান হাছান মাহমুদ।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0