ব্যক্তিজীবনে জেনারেল ওসমানী ছিলেন আদর্শবান। রাজনীতিতেও সেই সততায় অবিচল ছিলেন। সৎ রাজনীতির একজন অগ্রপথিক ছিলেন ওসমানী। বর্তমান রাজনীতিতে সৎ চর্চা বিকশিত করতে তাঁর জন্ম ও মৃত্যুবার্ষিকী রাষ্ট্রীয়ভাবে পালন এবং সরকারি ছুটি ঘোষণা করা প্রয়োজন।’

মুক্তিযুদ্ধের প্রধান সেনাপতি জেনারেলএম এ জি ওসমানীর ৩১তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে গতকাল সোমবার সিলেট নগরে ভাসানী-ওসমানী স্মৃতি সংসদ আয়োজিত আলোচনা সভায় বক্তারা এ মতামত ব্যক্ত করেন।

ভাসানী-ওসমানী স্মৃতি সংসদের সাহেবনগর কার্যালয়ে সকালে ওসমানীর মৃত্যুবার্ষিকীতে দোয়া মাহফিলের পর আলোচনা সভা হয়। সিলেটের নোয়ারাই ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান খলিলুর রহমানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় স্মৃতি সংসদের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আমিনুল ইসলাম, মুক্তিযোদ্ধা কাজী গোলাম মর্তুজা প্রমুখ বক্তব্য দেন। সভা সঞ্চালনা করেন স্মৃতি সংসদের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল আহমদ।

মৃত্যুবার্ষিকী পালন করে একই দাবি জানিয়েছে বঙ্গবীর ওসমানী স্মৃতি পরিষদ নামের সংগঠন। সোমবার জোহরের নামাজ শেষে হজরত শাহজালাল (রহ.) দরগাহে ওসমানীর কবরস্থানে পরিষদের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করেন তাঁরা।

বঙ্গবীর ওসমানী স্মৃতি পরিষদের সভাপতি ফয়জল বারীর সভাপতিত্বে স্মরণসভায় ওসমানীর কর্মময় জীবনের ওপর আলোচনা করেন প্রবীণ সাংবাদিক এম সিরাজুল ইসলাম প্রমুখ।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন