বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আজ মঙ্গলবার বিকেলে ঢাকায় বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিল মিলনায়তনে সংবর্ধনা সভা ও ইফতার মাহফিলে মন্ত্রী এসব কথা বলেন। বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় (বাকৃবি) অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন বাকৃবির পাঁচজন অ্যালামনাই এ বছর একুশে পদক পাওয়ায় এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে এ বছর একুশে পদকপ্রাপ্ত বাকৃবির ইমেরিটাস অধ্যাপক আব্দুস সাত্তার মণ্ডল, চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি অ্যান্ড অ্যানিমেল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য গৌতম বুদ্ধ দাশ, ধান গবেষণা ইনস্টিটিউটের বিজ্ঞানী এনামুল হক, সাহানাজ সুলতানা ও জান্নাতুল ফেরদৌসিকে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়।

কৃষিমন্ত্রী ও বাকৃবি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক বলেন, পাঁচজন কৃষিবিদ এ বছর রাষ্ট্রীয় পুরস্কার একুশে পদক পেয়েছেন। এটি সব কৃষিবিদের জন্য অহংকারের, গর্বের। এ পুরস্কার সব কৃষিবিদকে প্রেরণা জোগাবে।

মন্ত্রী বলেন, দুই বছর ধরে করোনার অভিঘাতে এবং সাম্প্রতিক রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে সারা পৃথিবীতেই অর্থনীতিতে ও খাদ্যদ্রব্যের মূল্যে অস্থিরতা চলছে। এ পরিস্থিতির মধ্যেও বাংলাদেশের অর্থনীতি ভেঙে পড়েনি। রাজনৈতিক অস্থিরতা তৈরি হয়নি। বরং সারা পৃথিবীতে দেশের অর্থনীতি শক্তিশালী অবস্থানে আছে। এই সাফল্যের পেছনে রয়েছে দেশের তৈরি পোশাকশিল্প, রেমিট্যান্স ও কৃষি—এই তিন খাত। কৃষির এই সাফল্যকে আরও এগিয়ে নিতে কৃষিবিদদের জোরালো ভূমিকা রাখতে হবে।

অনুষ্ঠানে কৃষিসচিব মো. সায়েদুল ইসলাম, অতিরিক্ত সচিব হাসানুজ্জামান কল্লোল, বিএআরসির নির্বাহী চেয়ারম্যান শেখ মো. বখতিয়ার, বাকৃবি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের নির্বাহী সভাপতি হামিদুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. আওলাদ হোসেন প্রমুখ বক্তব্য দেন। এ সময় বিভিন্ন সংস্থার প্রধান, বিজ্ঞানীসহ পাঁচ শতাধিক বাকৃবি অ্যালামনাই উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন