৬৮০ মুক্তিপ্রাপ্ত বাংলাদেশিকে ফেরাতে পশ্চিমবঙ্গ কারা দপ্তরের চিঠি

বিজ্ঞাপন
default-image

অবৈধ পথে পশ্চিমবঙ্গে ঢোকার দায়ে বহু বাংলাদেশি সেখানকার কারাগারগুলোতে বন্দী আছেন। তাঁদের মধ্য বর্তমানে ৬৮০ জনের কারাভোগ পূর্ণ হয়েছে। কিন্তু করোনাকালে বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের সড়ক যোগাযোগ বন্ধ হওয়ায় তাঁদের ফেরত পাঠানো যায়নি। এসব ব্যক্তিকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠাতে পশ্চিমবঙ্গের কারা দপ্তর তাদের স্বরাষ্ট্র দপ্তরকে অনুরোধ জানিয়ে চিঠি দিয়েছে।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পশ্চিমবঙ্গের কারা দপ্তর সূত্রে জানা গেছে, সেখানে বাংলাদেশি বন্দীদের মধ্যে নারী-পুরুষের পাশাপাশি শিশুরাও আছে। মূলত বিভিন্ন সময় তাঁরা ভারতের পুলিশ ও সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফের হাতে আটক হয়েছিলেন। পরে ‘ফরেনার্স’ আইনে তাঁদের অবৈধ প্রবেশের দায়ে বিচারের মুখোমুখি করা হয়। এসব বন্দীর অধিকাংশ রয়েছেন দমদম, বহরমপুর, মালদহ, কৃষ্ণনগর, বালুরঘাট, জলপাইগুড়ি, বনগাঁ, বসিরহাটসহ বিভিন্ন সীমান্ত এলাকার কারাগার ও উপকারাগারে।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

কারা দপ্তর আরও জানায়, করোনাকালে পশ্চিমবঙ্গের কয়েক হাজার বন্দীকে প্যারোলে এবং জামিনে মুক্তি দেওয়া হয়েছে। ওই সব বন্দী এখন কারাগারে ফিরতে শুরু করেছেন। ফলে বিভিন্ন কারাগারে এখন আবার বন্দীদের থাকার জন্য স্থানের অভাব দেখা দিয়েছে। তাই কারা কর্তৃপক্ষ কারাভোগ পূর্ণ করা এই বাংলাদেশিদের দ্রুত ফেরত পাঠাতে চাইছে।

এ ব্যাপারে আজ শুক্রবার সকালে কলকাতায় বাংলাদেশ উপহাইকমিশনে যোগাযোগ করা হলে এক কর্মকর্তা প্রথম আলোকে বলেন, ‘মুক্তিপ্রাপ্ত এব বন্দীদের পশ্চিমবঙ্গ সরকার যেকোনো সময় বাংলাদেশে ফেরত পাঠিয়ে দিতে পারে। এঁরা বাংলাদেশে ফিরে যেতে পারলে নিশ্চয়ই খুশি হবেন। আমরাও তাই চাই।’

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন