default-image

করোনাভাইরাসের কারণে থমকে আছে বিশ্ব। কবে থামবে এই মৃত্যু মিছিল কেউ জানে না! করোনা পরিস্থিতির মধ্যেই এবার ঈদ পালন করলো বিশ্ববাসী। স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঘর কিংবা মসজিদে ঈদের নামাজ আদায় করলেও ছিলো না চিরচেনা শুভেচ্ছা বিনিময় আর উদযাপন। অসহায় মানুষগুলোকে আরো বেশি অসহায় করে তুলেছে বর্তমান প্রেক্ষাপট।

কিন্তু যাদের জীবন উৎসর্গ করা মানুষের সেবায়, তাদের ঈদ উদযাপনটাও ছিলো মানুষের মাঝে, মানুষদের নিয়ে। মেডিকেল ও ডেন্টাল শিক্ষার্থী দ্বারা পরিচালিত জাতীয় প্রতিষ্ঠান সন্ধানী করোনা পরিস্থিতির শুরু থেকেই সাধারণ মানুষের জন্য বিভিন্ন কার্যক্রম হাতে নিয়েছিল। এবারের ঈদও সন্ধানীয়ানদের কেটেছে অন্যের মুখে হাসি ফুটানোর প্রচেষ্টায়।

ঈদ উপলক্ষে ২৩ থেকে ২৯ মে পর্যন্ত সপ্তাহব্যাপী ব্যতিক্রমধর্মী বিভিন্ন কার্যক্রম হাতে নেয় সন্ধানী কেন্দ্রীয় পরিষদ, সন্ধানীর ২৫টি ইউনিট, সন্ধানী করতে ইচ্ছুক বিভিন্ন মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থীরা এবং ৬৪ জেলায় গঠিত ৪১টি সন্ধানী ক্র্যাক প্লাটুন ভলেন্টিয়ার টিম।

সন্ধানী কেন্দ্রীয় পরিষদের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক সাকিব মাহমুদ জানান, ঈদ উপলক্ষে সন্ধানী 'ঈদের খুশি ভাগাভাগি', 'প্রজেক্ট হাসিমুখ', 'তিন চাকা', 'ঈদের হাসি'র মতো কর্মসূচি হাতে নেয়। প্রজেক্ট সমূহ বাস্তবায়নে ঈদের সময় কয়েক শত সন্ধানীয়ান দেশব্যাপী কাজ করেছে।

default-image

সন্ধানী ক্র্যাক প্লাটুন ভলান্টিয়ার টিম কেন্দ্রীয় সমন্বয় কমিটির সমন্বয়ক রাজীব আহসান সুমন ও কেন্দ্রীয় পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আতিকুর রহমান জানান, ঈদের একদিন আগে দেশে বিভিন্নয় জায়গায় ইফতার ও খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়। কোথায় কোথায় নিঃস্ব পথশিশুকে ঈদের জামা বিতরণ করা হয়।

ঈদের দিন সন্ধানীর বিভিন্ন কার্যক্রম সম্পর্কে সন্ধানী কেন্দ্রীয় পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মির্জা মিনহাজুল ইসলাম হৃদয় বলেন, ঈদের দিনেও মানুষের জন্যে রাস্তায় নেমেছে সন্ধানীয়ানরা। কেউ যেন ঈদের আনন্দ থেকে বঞ্চিত না হয়, সে লক্ষ্যে দেশব্যাপী ঈদের দিন বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করে সন্ধানী। যার মধ্যে রয়েছে, মৌলভীবাজার সন্ধানী ক্র্যাক প্লাটুন ভলান্টিয়ার টিম, পার্কভিউ মেডিকেল কলেজের সন্ধানী করতে ইচ্ছুক শিক্ষার্থীরা মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে ৩০টি পরিবারের মধ্যে ঈদ ফুড গিফট প্যাক বিতরণ করে। করোনা যুদ্ধে প্রথম শাহাদাতবরণকারী চিকিৎসক ডা. মো. মঈন উদ্দিনের স্মরণে ঈদুল ফিতরের নামাজের পর সন্ধানী সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজের পক্ষ থেকে ৫৭ টি অসহায় সামর্থ্যহীন বৃদ্ধ ও পথশিশুর মধ্যে খাবার বিতরণ করা হয়। প্রজেক্ট তিন চাকার অধীনে ময়মনসিংহের ২৩০ জনের অধীক রিকশা, ভ্যান, অটোচালককে পোলাও, মাংস খাবার বিতরণ করেছে ময়মনসিংহ জেলার সন্ধানী ক্র‍্যাক প্লাটুন ভলান্টিয়ার টিম।

default-image

ঈদের মধ্যেও চলমান সন্ধানীর অন্যান্য কার্যক্রম সম্পর্কে সন্ধানী কেন্দ্রীয় পরিষদের সভাপতি তানভীর হাসান ইকবাল জানান, "সন্ধানীর প্রত্যেকটি ইউনিট, ডোনার ক্লাব, কেন্দ্রীয় রক্ত পরিসঞ্চালন কেন্দ্র এবং ভলেন্টিয়ার টিম সমূহ প্রতিনিয়ত হাসপাতালের মুমূর্ষু এবং থ্যালাসেমিয়া রোগীদের রক্তের যোগান দিয়ে যাচ্ছে। করোনা রোগীদের জন্যে দেশে পরীক্ষামূলকভাবে শুরু হওয়া প্লাজমা থেরাপীর জন্যে উদ্ভুদ্ধকরণ ও নীতিমালা অনুযায়ী ডোনার যোগান দিয়ে যাচ্ছে সন্ধানী। প্লাজমা দানে ইচ্ছুক করোনা জয়ীরা সন্ধানীর সাথে ০১৭৯১-৯৫২৩৫৩, ০১৭৮৫-৬৪৮৬২২ নম্বরে যোগাযোগ করতে পারবে। তিনি বলেন, ঢাকা বা তার আশেপাশের এলাকায় বিভিন্ন হাসপাতালে কর্মরত কোনো চিকিৎসক বা তার পরিবারের কোনো সদস্য যদি করোনায় আক্রান্ত হয় অথবা কোনো শিক্ষার্থী এবং তাদের পরিবারের সদস্য কেউ করোনায় আক্রান্ত হলে তাদের জন্যে প্রয়োজন অনুযায়ী বিনামূল্যে অ্যাম্বুলেন্স সেবা দিয়ে যাচ্ছে সন্ধানী কেন্দ্রীয় পরিষদ। এ ছাড়াও বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসকদের জন্যে সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ করা হচ্ছে।

লেখক: ডা. মনির হোসেন শিমুল, উপদেষ্টা, সন্ধানী কেন্দ্রীয় পরিষদ ও অপূর্ব কৃষ্ণ সরকার, সাধারণ সদস্য, সন্ধানী এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ ইউনিট।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন