বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সংবাদ সম্মেলনে ধানমন্ডি সর্বজনীন পূজা উদ্‌যাপন কমিটির সাধারণ সম্পাদক সমেন সাহা বলেন, ধানমন্ডি, কলাবাগান, হাজারীবাগ, মোহাম্মদপুর, নিউমার্কেট ও আশপাশের এলাকার সনাতন ধর্মাবলম্বীরা ২০০৭ সাল থেকে কলাবাগান ক্রীড়াচক্র মাঠে দুর্গাপূজা করছেন। এ এলাকার প্রায় ৬০ হাজার হিন্দু অধিবাসীর জন্য কোনো মন্দির নেই। গত ২৬ আগস্ট সরকার নির্দেশিত সব নিয়ম ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে পূজা উদ্‌যাপনের জন্য ডিএসসিসি মেয়র ফজলে নূর তাপসের কাছে লিখিত অনুমতি চাওয়া হয়। কিন্তু এক মাস পার হওয়ার পর যোগাযোগ করেও সন্তোষজনক সাড়া পাওয়া যায়নি।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, এই মাঠে এ বছরের ১৫তম শারদীয় দুর্গাপূজা উদ্‌যাপনের সব প্রস্তুতি শেষ। গত ২৯ সেপ্টেম্বর স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী তাজুল ইসলাম পূজা করার অনুমতি দিয়েছেন। ডিএসসিসি এই মন্ত্রণালয়ের অধীন। সমেন সাহা বলেন, ‘মন্ত্রণালয়ের অনুমতিপত্র থাকার পরও ডিএসসিসির অসহযোগিতা ও বাধার কারণে আমরা পূজা করতে পারছি না।’

২৪ ঘণ্টার মধ্যে পূজার অনুমতি না দিলে শাহবাগ চত্বর থেকে কলাবাগান মাঠ পর্যন্ত প্রতিবাদী পদযাত্রা শেষে অবস্থান কর্মসূচি পালন করা হবে বলে সংবাদ সম্মেলনে ঘোষণা দেওয়া হয়। একই সঙ্গে ডিএসসিসি মেয়রের পদত্যাগ দাবি করা হয়। বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের কেন্দ্রীয় সভাপতি নিম চন্দ্র ভৌমিক এই প্রতিবাদ কর্মসূচির সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করেন।

সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ পূজা উদ্‌যাপন পরিষদের সাবেক সভাপতি জয়ন্ত সেন ও কাজল দেবনাথ, মহানগর সর্বজনীন পূজা উদ্‌যাপন কমিটির সাধারণ সম্পাদক কিশোর কুমার মন্ডল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন