নওগাঁয় গত দুই দিনে সড়ক দুর্ঘটনায় এক কলেজশিক্ষকসহ তিনজন নিহত হয়েছেন। গতকাল মঙ্গলবার ঠাকুরগাঁও ও রংপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় আরও চারজন নিহত হন।
নিহত ব্যক্তিরা হলেন নওগাঁর ধামইরহাট উপজেলার এম এম ডিগ্রি কলেজের পদার্থবিদ্যা বিভাগের ব্যবহারিক শিক্ষক রেজাউর রহমান বাবু, একই উপজেলার ভগবানপুর গ্রামের মাহবুব হোসেনের ছেলে ইমরান হোসেন, পোরশা উপজেলার সারাইগাছী গ্রামের আবদুল করিমের ছেলে মতিউর রহমান, ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার জামালপুর গ্রামের বেলাল হোসেন ও একই উপজেলার কচুবাড়ি গ্রামের মকসেদ আলীর ছেলে রাজু, রংপুর শহরের সিও বাজার এলাকার শাহজাদা ও তাঁর আত্মীয় মাহাবুবার। প্রথম আলোর নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর:
আদমদীঘি (বগুড়া): কলেজশিক্ষক রেজাউর রহমান (৫৯) গত সোমবার সন্ধ্যায় ধামইরহাট বাজার নিমতলীর মোড় থেকে বাড়ি যাচ্ছিলেন। এ সময় পেছন থেকে একটি ইজিবাইক তাঁকে ধাক্কা দেয়। এতে তিনি গুরুতর আহত হন। তাৎক্ষণিক স্থানীয় লোকজন তাঁকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত সাড়ে ১০টায় তিনি মারা যান। গতকাল সকালে ইমরান হোসেন (১৮) মোটরসাইকেলে টিঅ্যান্ডটি এলাকায় আসছিলেন। পথে মহিলা কলেজের কাছে মোটরসাইকেলটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাছের সঙ্গে ধাক্কা খায়। এতে ইমরান গুরুতর জখম হন। উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। সোমবার সকালে পোরশা উপজেলার সারাইগাছী-শিশা রোডের চকগোপাল এলাকায় একটি ট্রাক মতিউর রহমানকে (১৫) ধাক্কা দেয়। তাকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে সে মারা যায়।
ঠাকুরগাঁও: গতকাল সকালে ঠাকুরগাঁও সদর হাসপাতালের সামনে রাস্তা পার হওয়ার সময় সদর উপজেলার জামালপুর গ্রামের বেলাল হোসেনকে (৩৫) এক একটি মোটরসাইকেল ধাক্কা দেয়। স্থানীয় লোকজন উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বগুলাডাঙ্গী এলাকায় একটি ট্রলি উল্টে যায়। এতে ট্রলির নিচে পড়ে চালকের সহকারী সদর উপজেলার কচুবাড়ি গ্রামের রাজু (১৭) মারা যায়।
রংপুর: গতকাল সন্ধ্যায় ঢাকা থেকে নীলফামারীর ডিমলাগামী যাত্রীবাহী নাবিল পরিবহনের সঙ্গে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে মোটরসাইকেলটি দুমড়ে-মুচড়ে যায়। এ সময় ঘটনাস্থলেই মোটরসাইকেলের চালক শাহজাদা (২৮) ও আরোহী মাহাবুবার (২৯) মারা যান। কোতোয়ালি থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আল আমিন বলেন, যাত্রীবাহী বাসের সঙ্গে মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে দুজন নিহত হয়েছেন। তাঁদের লাশ রংপুর মেডিকেল কলেজের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন