বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

অথচ এখনো অগ্রহায়ণও শুরু হয়নি। কার্তিক শেষ হতে এখনো এক সপ্তাহ বাকি। আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদেরা মনে করছেন, এবার আগেভাগে শীত আসায় দেশে শীতের সময়কালের স্থায়িত্বও বাড়তে পারে। সাধারণত ডিসেম্বর থেকে মার্চ পর্যন্ত দেশে শীত থাকে। কিন্তু এবার নভেম্বর থেকে শীত শুরু হওয়ায় সময়কাল লম্বা হতে পারে। তবে এ মাসের আগাম শীত কয়েকটি এলাকায় সীমাবদ্ধ থাকতে পারে।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের হিসাব অনুযায়ী, দেশের গড় তাপমাত্রা এখন স্বাভাবিকের চেয়ে দুই থেকে তিন ডিগ্রি সেলসিয়াস কম। রাজধানীতে ভোর আর মধ্যরাতে ঠান্ডা বাতাস বয়ে যাচ্ছে। রংপুর, রাজশাহী ও সিলেট বিভাগের বেশির ভাগ এলাকায় প্রতিদিন সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসের আশপাশে থাকছে। দেশের আবহাওয়ার বিচারে কোনো এলাকায় তাপমাত্রা ১৫ থেকে ৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে থাকলে শীত শুরু হয়েছে বলে ধরা হয়। সাধারণত নভেম্বরের শেষে বা ডিসেম্বরের শুরুতে তাপমাত্রা এই পর্যায়ে থাকে।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ বজলুর রশীদ প্রথম আলোকে বলেন, এবার মৌসুমি বায়ু কিছুটা দেরিতে গেছে। তবে যাওয়ার সময় মেঘ সঙ্গে করে নিয়ে যাওয়ায় আকাশ প্রায় মেঘমুক্ত। এ ধরনের আবহাওয়া দ্রুত শীত নামার জন্য অনুকূল। এ কারণে সময়ের আগেই কয়েকটি এলাকায় শীত নেমে গেছে। তবে ১১ নভেম্বর থেকে বঙ্গোপসাগরে একটি লঘুচাপ দেখা দিতে পারে। এতে তাপমাত্রা কিছুটা বাড়তে পারে। সেটি চলে গেলে সারা দেশে পুরোদমে শীত শুরু হতে পারে।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের হিসাবে, গত এক সপ্তাহের মতো গতকাল রোববারও দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায়। এদিন এখানে তাপমাত্রা ছিল ১৪ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এ ছাড়া মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল, যশোর, নওগাঁ, কুড়িগ্রাম ও নীলফামারীর তাপমাত্রা ১৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসের আশপাশে ছিল। রাজধানীর সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২০ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আজ সোমবার দেশের বেশির ভাগ এলাকার তাপমাত্রা অপরিবর্তিত থাকতে পারে।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন