গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার চন্দ্রা, বাগাম্বর, মাথালিয়া এলাকায় গতকাল বুধবার পৃথক তিনটি সড়ক দুর্ঘটনা ঘটেছে। এতে কারখানার একজন শ্রমিক ও ট্রাকচালকের সহযোগী নিহত হয়েছেন। এ ছাড়া মুন্সিগঞ্জের গজারিয়া উপজেলার বালুয়াকান্দি এলাকায় একই দিনে বাসের সঙ্গে ধাক্কায় অ্যাম্বুলেন্সের সহকারী নিহত হন।
কালিয়াকৈরে নিহত ব্যক্তিরা হলেন কালিয়াকৈর উপজেলার বড়ইবাড়ী আজিপাড়া এলাকার বাচ্চু মিয়া (৩৭) এবং একই উপজেলার জালশুকা এলাকার মাইদুল। তিনি স্থানীয় নুর অয়েল কারখানার শ্রমিক ছিলেন।
প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গতকাল সকালে উপজেলার হরিণহাটি এলাকার অ্যাপেক্স ফুটওয়্যার লিমিটেড কারখানার শতাধিক শ্রমিক একটি বাসে করে কারখানার দিকে যাচ্ছিল। পথে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের উপজেলার চন্দ্রা এলাকায় পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি পাথরভর্তি ট্রাকের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে বাসের চালক, সহযোগীসহ কমপক্ষে ৪৫ জন আহত হন।
কোনাবাড়ী হাইওয়ে পুলিশের পরিদর্শক দাউদ জানান, দুর্ঘটনাকবলিত বাস ও ট্রাক আটক করা হয়েছে।
একই দিন সকালে উপজেলার চন্দ্রা নুর অয়েল কারখানার শতাধিক শ্রমিক বাসে করে কারখানায় যাচ্ছিলেন। পথে উপজেলার বাড়ইপাড়া-চান্দাবহ আঞ্চলিক সড়কের মাথালিয়া এলাকায় পৌঁছালে বাসটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে পড়ে। এ সময় ওই কারখানার শ্রমিক মাইদুল ঘটনাস্থলে মারা যান। এতে কমপক্ষে পাঁচজন শ্রমিক আহত হন। আশপাশের লোকজন আহত ব্যক্তিদের উদ্ধার করে কালিয়াকৈর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও স্থানীয় ক্লিনিকে ভর্তি করান।
এদিকে গত মঙ্গলবার গভীর রাতে উপজেলার সফিপুর-বড়ইবাড়ী আঞ্চলিক সড়কের বাগাম্বর এলাকায় সফিপুরগামী মাটিভর্তি একটি ট্রাক অন্য একটি ট্রাককে পাশ কাটানোর সময় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে ঘটনাস্থলেই ট্রাকচালকের সহযোগী বাচ্চু মিয়া মারা যান।
মুন্সিগঞ্জের গজারিয়া উপজেলার ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে দুর্ঘটনায় নিহত অ্যাম্বুলেন্সের সহকারী হলেন মামুন মিয়া (২৩)। এ সময় অ্যাম্বুলেন্সে থাকা রোগীসহ চারজন আহত হন।
গজারিয়ার ভবেরচর হাইওয়ে ফাঁড়ির সার্জেন্ট সাইফুল ইসলাম জানান, অ্যাম্বুলেন্সটি নোয়াখালী হাসপাতাল থেকে রোগী ও রোগীর স্বজনদের নিয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে যাচ্ছিল। ভোরে বালুয়াকান্দিতে অ্যাম্বুলেন্সটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তায় দাঁড়িয়ে থাকা বাসকে ধাক্কা দেয়। এ সময় এটির সামনের অংশ দুমড়ে-মুচড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যান মামুন। এ সময় অ্যাম্বুলেন্সের চালক পালিয়ে যান।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন