কিশোরকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় মামলা, গ্রেপ্তার ১

বিজ্ঞাপন
default-image

নরসিংদী শহরের মেঘনা নদীতে ফারহান আহমেদ ওরফে অনিক (১৫) নামের এক কিশোরকে কয়েক শ মানুষের সামনে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় মামলা হয়েছে। বুধবার বিকেলে নিহত কিশোরের বাবা শহিদুল্লাহ মিয়া বাদী হয়ে নয়জনের নাম উল্লেখ করে নরসিংদী মডেল থানায় মামলা করেন। মামলার পর এক আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বুধবার রাত সাড়ে আটটার দিকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন নরসিংদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বিপ্লব কুমার দত্ত চৌধুরী।

এর আগে মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে শহরের শেখ হাসিনা সেতুর নিচে (চরাঞ্চল অংশে) কয়েক শ মানুষের সামনে ওই কিশোরকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনা ঘটে। । ঈদের আনন্দ উদ্‌যাপন করতে নৌকাভ্রমণের আয়োজন করা দুই দল কিশোর-তরুণের বালু ছোড়ার মতো সামান্য ঘটনাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের সময় এই হত্যাকাণ্ড হয়।

মামলার এজাহারে বলা হয়, গত সোমবার বিকেলে মামলার এজাহারভুক্ত চার আসামির সঙ্গে ফারহান আহমেদ শেখ হাসিনা সেতু এলাকায় ঘুরতে গেলে তাদের মধ্যে ঝগড়া হয়। উপস্থিত লোকজন ঘটনাটি মিটমাট করে দিলে তারা যার যার বাড়ি ফিরে আসে। এর জের ধরে মঙ্গলবার বিকেলে পরিকল্পনা অনুসারে তাদের একজন সমস্যা সমাধানের কথা বলে ফোন করে ফারহানকে ডেকে নিয়ে যায় ওই সেতুতে। সেখানে নৌকাভ্রমণে আসা আরও পাঁচজন তাদের পরিকল্পনার সঙ্গে যুক্ত হয়। বিকেল পাঁচটার দিকে তাকে নৌকার পাটাতনের কাঠ দিয়ে মাথায় ও শরীরের বিভিন্ন অংশে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে নদীতে ফেলে দেওয়া হয়। কিছুক্ষণ তাকে পানিতে চেপে ধরে রাখা হলে একসময় সে তলিয়ে যায়। এ সময় আসামিরা নৌকায় করে পালিয়ে যায়। দীর্ঘক্ষণ খোঁজাখুঁজির পর ফারহানকে উদ্ধার করে নরসিংদী সদর হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ওসি বিপ্লব কুমার দত্ত চৌধুরী বলেন, মামলায় যাদের আসামি করা হয়েছে, গোপনীয়তার স্বার্থে তাদের নাম এখনই প্রকাশ করা যাচ্ছে না। তবে বুধবার রাত সাড়ে আটটার দিকে আরিফ মিয়া নামের এক আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। হত্যাকাণ্ডে জড়িত অন্য আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন