কিশোরগঞ্জের ইটনায় ধনু নদীতে আজ শনিবার বিকেলে ইঞ্জিনচালিত একটি যাত্রীবাহী ট্রলার ডুবে গেছে। ঘটনাস্থল থেকে হ্যাপি আক্তার (৩) নামের এক শিশুর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

ট্রলারে থাকা একাধিক যাত্রী জানান, বেলা আড়াইটার দিকে কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জ উপজেলার চামড়া নৌবন্দর থেকে যাত্রী ও মালামাল নিয়ে ট্রলারটি খালিয়াজুড়ি শ্যামারচর গ্রামের উদ্দেশে ছেড়ে যায়। বেলা সাড়ে তিনটার দিকে এরশাদনগর বন্যা আশ্রয়কেন্দ্র এলাকা অতিক্রম করার সময় ট্রলারটি ভারসাম্যহীন হয়ে পড়ে। পরে এটি ডুবে যায়। এ সময় যাত্রীদের চিৎকারে স্থানীয় লোকজন ও অন্য ট্রলারের যাত্রীরা এগিয়ে এসে উদ্ধারকাজ শুরু করেন।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ট্রলারের অধিকাংশ যাত্রী সাঁতরে তীরে উঠতে সক্ষম হন। ট্রলারে নিহত হ্যাপির বাবা হানিফ মিয়া ও মা পারুল আক্তারও ছিলেন। তাঁরা সাঁতরে তীরে উঠলেও হ্যাপি ডুবে যায়।

ইটনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল মালেক জানান, ডুবে যাওয়া ট্রলারটিকে টেনে তীরের কাছাকাছি আনা হয়েছে।
ইটনা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ​মো. আবদুল্লাহ জানান, ট্রলারটি উদ্ধার হয়েছে, সেখানে আর কোনো মরদেহ পাওয়া যায়​নি। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে হ্যাপি আক্তারের মা পারুল আক্তারকে ১০ হাজার টাকা দেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন