default-image

কুষ্টিয়ায় একটি কারখানায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমাণ নকল হ্যান্ড স্যানিটাইজারসহ বিভিন্ন ধরনের নকল পণ্য জব্দ করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। গতকাল বুধবার রাত সাড়ে ৮টায় শহরের জেলখানা মোড়ে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সবুজ হাসান এ অভিযান পরিচালনা করেন।

অভিযান শেষে নকল পণ্য তৈরির দায়ে কারখানার দুজন মালিককে তিন মাস করে কারাদণ্ড এবং উভয়কে ৫০ হাজার টাকা করে অর্থদণ্ড দেওয়া হয়। দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন কুষ্টিয়া শহরের সিরাজুল ইসলাম ও নূর মোহাম্মদ খান। পরে রাত নয়টার তাঁদের জেলা কারাগারে পাঠানো হয়।

ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্র জানায়, জেলখানা মোড় এলাকায় প্যাম্পাস এগ্রো অ্যান্ড লজিস্টিকস লিমিটেড নামে একটি প্রতিষ্ঠান সম্প্রতি নকল হ্যান্ড স্যানিটাইজার, সার্জিক্যাল মাস্ক, সুরক্ষা পোশাক, হ্যান্ডওয়াশ, টয়লেট ক্লিনার, টাইলস ক্লিনার, জীবাণুনাশকসহ বিভিন্ন পণ্য তৈরি করে শুরু করে। এমন সংবাদ পেয়ে সেখানে রাতে অভিযান চালানো হয়। দেশের নামকরা একটি প্রতিষ্ঠানে তৈরিকৃত হ্যান্ড স্যানিটাইজারের উপাদান নকল করে এসব হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরি করা হচ্ছিল। এ সময় প্রায় ১ হাজার পিস নকল হ্যান্ড স্যানিটাইজার, ৬ হাজার পিস সার্জিক্যাল মাস্ক, ২১ পিস সুরক্ষা পোশাক জব্দ করা হয়। এ সময় সেখানে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সবুজ হাসান প্রথম আলোকে বলেন, কারখানাটিতে কেমিস্ট বা ল্যাবের কার্যক্রম নেই। ভেজাল কেমিক্যাল ও অন্য প্রতিষ্ঠানের তৈরি পণ্যের উপাদান নকল করে নিজেরাই এসব পণ্য তৈরি করে বাজারজাত করে আসছিল। কারখানাটি সিলগালা করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0