আজ সোমবার দুপুরে সদ্য সমাপ্ত ওয়াশিংটন সফরে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আলোচনা নিয়ে জানতে চাইলে তিনি এ মন্তব্য করেন। ৪ এপ্রিল ওয়াশিংটনে অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের নিরাপত্তা সংলাপে বাংলাদেশের নেতৃত্ব দেন মাসুদ বিন মোমেন। সপ্তাহখানেকের সফর শেষে তিনি রোববার দেশে ফিরেছেন।

আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক নানা প্রেক্ষাপটে রাশিয়া- ইউক্রেন যুদ্ধের প্রসঙ্গ আলোচনায় এসেছে বলে তিনি উল্লেখ করেন। পররাষ্ট্রসচিব বলেন, ‘রাশিয়ার ইউক্রেনে আগ্রাসনের বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্র তাদের অবস্থান স্পষ্ট করেই বলেছে। এ ইস্যুতে জাতিসংঘে তিনটি ভোট নিয়ে আমরা আলোচনা করেছি। আমরা আমাদের অবস্থান তাদের জানিয়েছি।’

জাতিসংঘের ভোটাভুটিতে বাংলাদেশের অবস্থানের প্রসঙ্গ টেনে মাসুদ বিন মোমেন বলেন, ‘আমরা বলেছি, রাশিয়ার সঙ্গে আমাদের ঐতিহাসিক যে সম্পর্ক, সেই আলোকেই আমরা আমাদের অবস্থানটা নিয়েছি। এখনো রাশিয়ার সঙ্গে যথেষ্ট ঘনিষ্ঠতা আছে। সুতরাং কেউ চাইলেই এটাকে সেভাবে অ্যাডজাস্ট করাটা আমাদের জন্য ডিফিকাল্ট। সুতরাং আমরা আমাদের যে অর্থনীতি অগ্রাধিকার, যেমন রূপপুর প্রকল্প কেউ যদি বলে যে করো না, তখন আমরা বলব আমাদেরকে আমাদের অগ্রাধিকার শেষ করতে দাও, বাকিটা পরে দেখা যাবে। আমরা তো বৈচিত্র্য (বিভিন্ন দেশের সঙ্গে সম্পর্কে) আনতেই চাই। সেটা পারমাণবিক হোক, বিভিন্ন রকম বিনিয়োগ হোক, আমরা সব দেশের সঙ্গে ভালো অবস্থান রাখতে চাই। সব দেশের সঙ্গে আমরা একধরনের যুক্ততা রাখতে চাই। তবে এক দেশের সঙ্গে অন্যদের সম্পর্ক যদি খারাপ থাকে, সেটা যেন আমাদের সম্পর্ককে ব্যহত না করে সে রকম ইঙ্গিত তাদের (যুক্তরাষ্ট্র) দিয়েছি।’