কোয়ারেন্টিন না মানায় ১০ হাজার টাকা জরিমানা

বিজ্ঞাপন

মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলায় গতকাল মঙ্গলবার কুয়েতফেরত এক ব্যক্তি কোয়ারেন্টিন মেনে ঘরে না থাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত তাঁকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন। স্থানীয় লোকজন তাঁর বিরুদ্ধে প্রশাসনে অভিযোগ করলে কর্মকর্তা গিয়ে অভিযোগের সত্যতা পেয়েছেন। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে ওই ব্যক্তি অর্থদণ্ড দেওয়া হয়।

প্রশাসন ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বড়লেখা পৌরসভার ওই ব্যক্তি সম্প্রতি কুয়েত থেকে দেশে এসেছেন। নিয়ম অনুযায়ী তাঁর ১৪ দিনের হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার কথা। বড়লেখা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্মী ও পৌরসভার লোকজন তাঁকে কোয়ারেন্টিনে থাকার অনুরোধ করে যান। কিন্তু তিনি তা মানেননি।

স্থানীয় লোকজন বিদেশফেরত ওই ব্যক্তির অবাধ বিচরণের বিষয়টি প্রশাসনকে জানান। অভিযোগ পেয়ে গতকাল সন্ধ্যায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. শামীম আল ইমরান ওই ব্যক্তির বাড়ি যান। এ সময় তাঁকে ঘরে পাওয়া যায়নি। এরপর তাঁকে বাড়ির লোকজনের মাধ্যমে খবর দিয়ে আনা হয়। পরে কোয়ারেন্টিনের নিয়ম না মানায় তাঁকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা ও তাঁর পাসপোর্ট জব্দ করা হয়। আজ বুধবার থেকে তাঁকে কোয়ারেন্টিন শুরু করতে বলা হয়েছে।

অভিযানের সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বড়লেখা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা রতন বিশ্বাস, বড়লেখা থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) রতন নাথ, উপপরিদর্শক (এসআই) প্রভাকর রায়, সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) তরুণ মজুমদার।

ইউএনও ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. শামীম আল ইমরান বলেন, হাসপাতালের স্বাস্থ্যকর্মী ও পৌরসভার লোকজন কয়েকবার তাঁকে বাড়ি গিয়ে হোম কোয়ারেন্টিন মানার নির্দেশ দেন। কিন্তু তিনি মানেননি। গ্রামে ঘোরাফেরা করতেন। এমন অভিযোগ ছিল। তাঁর বাড়ি গেলেও তাঁকে বাড়ির বাইরে পাওয়া যায়। হোম কোয়ারেন্টিনের নির্দেশনা পালন করেননি। এর পরিপ্রেক্ষিতে তাঁর পাসপোর্ট জব্দ ও ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। হোম কোয়োরেন্টিনে থাকা বিদেশফেরত অন্য ব্যক্তিদের বাড়িও এ সময় পরিদর্শন করা হয়।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন