default-image

শুরু হলো বিশ্বকাপ ক্রিকেট। অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের মাটিতে বিশ্বকাপের আসর বসলেও উন্মাদনায় পিছিয়ে নেই বাংলাদেশের ক্রিকেট অনুরাগীরাও। সব আড্ডার মূল বিষয়বস্তু ক্রিকেট। আগমন ঘটছে মৌসুমি খেলোয়াড়েরও। গলির মুখে কিংবা মাঠে—সবখানে এখন ক্রিকেটের জোয়ার। স্টাম্প আর ব্যাট-বল নিয়ে ক্রিকেটার বনে যাওয়ার সে কী চেষ্টা! যেন পুরো দেশেই বিশ্বকাপের ঢেউ।
যার আঁচ লেগেছে নগরের চট্টগ্রাম ইনডিপেনডেন্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের (সিআইইউ) ক্যাম্পাসে। ক্লাস ও পরীক্ষার ফাঁকে ক্যাম্পাস চত্বর কিংবা ক্যাফেটেরিয়ায় আড্ডায় বারবার উঠে আসছে ক্রিকেট বিশ্বকাপ। সবার কণ্ঠে ধ্বনিত হচ্ছে ‘বাংলাদেশ, বাংলাদেশ’।
গত বৃহস্পতিবার, বেলা ১১টা। হরতালের কারণে বন্ধ রয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাস-পরীক্ষা। তবু হরতাল উপেক্ষা করে ছুটে এসেছেন বেশ কিছু শিক্ষার্থী। এর মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাফেটেরিয়ায় পাওয়া গেল একটি দল। এ দলের সদস্য ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের শিক্ষার্থী সানজিদ কবির, রাশেদুল ইসলাম, সঞ্জয় দাশ ও কাশফিয়া জামাল। তাঁদের পরনে বাংলাদেশ দলের জার্সি। এখনই উন্মাদনা! শুনেই সবার মুখে হাসি। সমস্বরে বললেন, বাংলাদেশ দলের সাফল্য কামনায় আগেভাগে তাঁদের এই আয়োজন। যদি জয় ধরা না দেয়? চার বন্ধুরই এক কথা, চার বছর আগের বিশ্বকাপের দল আর এই দল এক নয়। এবারের বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দল নিজেদের সামর্থ্য প্রমাণ করবেই।
বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে আড্ডা দিচ্ছিলেন প্রকৌশল বিভাগের একদল শিক্ষার্থী। বিশ্বকাপের কথা তুলতেই যেন নতুন করে দম পেলেন আড্ডাড়ুরা। কথার গাড়ির স্টিয়ারিং ধরলেন তড়িৎ কৌশল বিভাগের শিক্ষার্থী বেনজির বিনতে শওকত। তিনি বললেন, ‘এবারের বিশ্বকাপে প্রথম সমর্থন বাংলাদেশ দলকে। এর বাইরে একেকজন একেক দেশকে সমর্থন করছি।’ তাঁদের পাশেই ছিলেন ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের শিক্ষার্থী নজিবুর রহমান, আকমুল জাহান, ফাইজা নাজ, মিনহাজ উদ্দিন, জারিন তাসনিম ও আদীবা সাইদ। এবার যোগ দিলেন তাঁরাও। তাঁদের মধ্যে লাল-সবুজের আবেগে একটু বেশি তাড়িত জারিন তাসনিম। তাঁর স্বপ্ন বাংলাদেশ এবার ক্রিকেট বিশ্বকাপ জিতবে।
কিন্তু জারিনের এই কথা মিনহাজের একেবারেই পছন্দ হয়নি। যুক্তি দিয়ে বোঝালেন স্বপ্নের পারদ এতটা ওঠা ভালো নয়। তাঁর মতে, বাংলাদেশ থেকে এত বেশি আশা করা অন্যায়। স্বপ্ন দেখতে হবে সামর্থ্যের মধ্যেই। তবে কি মিনহাজ অন্য কোনো দলের সমর্থক? বললেন, ‘বিশ্বকাপে অন্য দল সমর্থন করলেও আমার দেশ সবার ওপরে। তবে বাস্তবতা বুঝে আমাকে বাংলাদেশ দল থেকে প্রত্যাশা করতে হবে। দল থেকে আমার চাওয়া শুধু এটুকুই—তারা ভালো খেলুক। গ্রুপ পর্বে বাংলাদেশ দুর্বল প্রতিপক্ষকে হারাক, বড় দলের ভিত কাঁপিয়ে দিক।’

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন