খাগড়াছড়ি সদরের কমলছড়ি গ্রামের চর এলাকার সবজিখেত থেকে গত শনিবার রাতে সবিতা চাকমা নামের (৩০) এক গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে গতকাল হিল উইমেন্স ফেডারেশন ও কমলছড়ি গ্রামের বাসিন্দারা খাগড়াছড়ি শহরে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে।
প্রতিবেশীদের বরাত দিয়ে কমলছড়ি ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সদস্য বিনয় বাহু চাকমা বলেন, সকালে সবিতা চাকমা চর এলাকায় খেতে কাজ করতে যান। তাঁর স্বামী দেব রতন চাকমা অন্য কাজে বাড়ি থেকে বের হন। বিকেলে দেব রতন বাড়ি ফিরে স্ত্রীকে না পেয়ে বিভিন্ন জায়গায় খোঁজ করেন। পরে চর এলাকায় সবিতা চাকমার লাশ পাওয়া যায়। তিনি জানান, সবিতা চাকমার গলায় আঘাতের চিহ্ন ও তাঁকে অনেকটা বিবস্ত্র অবস্থায় পাওয়া গেছে। তাঁকে পাশবিক নির্যাতনের পর হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।
খাগড়াছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান বলেন, দেব রতন চাকমা থানায় হত্যা মামলা করেছেন। মামলায় কারও নাম উল্লেখ করা হয়নি। এদিকে গৃহবধূ হত্যার প্রতিবাদে খাগড়াছড়ি শহরে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে হিল উইমেন্স ফেডারেশন ও কমলছড়ি গ্রামের বাসিন্দারা। বিক্ষোভকারীরা খাগড়াছড়ি মুক্তমঞ্চে সমাবেশ করে ও মিছিল নিয়ে শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে।
সমাবেশ থেকে হত্যাকারীদের চিহ্নিত করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানানো হয়। সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন হিল উইমেন্স ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় সভাপতি কণিকা দেওয়ান, পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সভাপতি বিপুল চাকমা।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন