সাবেক বিচারপতি ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান টি এইচ খানের সঙ্গে বৈঠক করেছেন বিএনপিপন্থী চারজন জে৵ষ্ঠ আইনজীবী। এ সময় তাঁরা খালেদা জিয়ার মামলাসহ বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা করেন।
গতকাল বুধবার বিকেলে রাজধানীর মোহাম্মদপুরে তাজমহল রোডে টি এইচ খানের বাসায় যান ওই চার জে৵ষ্ঠ আইনজীবী। তাঁরা হলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সাবেক স্পিকার ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার, দলের চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল এ জে মোহাম্মদ আলী, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি খন্দকার মাহাবুব হোসেন ও দলের সহ-আইনবিষয়ক সম্পাদক নিতাই রায় চৌধুরী।
এ সময় ওই বাড়ির সামনে পুলিশ অবস্থান নিলে আইনজীবীরা আতঙ্কগ্রস্ত হয়ে পড়েন। প্রায় সাড়ে তিন ঘণ্টা ওই বাড়িতে অবস্থানের পর সংবাদকর্মীদের উপস্থিতিতে তাঁরা বেরিয়ে যান।
খন্দকার মাহাবুব প্রথম আলোকে বলেন, টি এইচ খান তাঁদের আইনগুরু। তাই খালেদা জিয়ার মামলার বিষয়ে পর্যালোচনা করে পরামর্শ নিতে এবং সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ায় দোয়া ও পরামর্শ নিতে তাঁরা ওই বাড়িতে আসেন। প্রায় ৯৩ বছরের টি এইচ খান অসুস্থ হওয়ায় গতকাল সুপ্রিম কোর্টে যেতে পারেননি। তাই তাঁরা তাঁর সঙ্গে দেখা করতে আসেন। এর কিছুক্ষণ পরেই ওই বাড়িটি ঘিরে রাখে পুলিশ।
খালেদা জিয়ার মামলার বিষয়ে কী আলোচনা হলো—জানতে চাইলে জমিরউদ্দিন সরকার বলেন, সরকার যদি তাঁকে গ্রেপ্তার করতেই চায় তবে তাঁরা (আইনজীবীরা) অনুরোধ জানাবেন খালেদা জিয়া বর্তমানে যে কার্যালয়ে রয়েছেন, সেখানেই তাঁকে গৃহবন্দী করে রাখা যায় কি না, তা বিবেচনা করতে। যেহেতু তিনি (খালেদা) অসুস্থ। তিনি নিজের লোকদের মাঝে থাকলে একটু ভালো থাকবেন। পরে অবশ্য অন্য আইনজীবীরা তাঁকে থামিয়ে দেন।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন