default-image

কম্পিউটার স্ক্রিনের সামনে বসা হাজারো খুদে গণিতবিদের তখন কি একটু দুশ্চিন্তা হচ্ছিল? গণিতের জটিল কোনো সমীকরণ মেলানোর জন্য নয়, গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে তারা অপেক্ষায় ছিল পরীক্ষার ফল জানতে। অনলাইনে জুম প্ল্যাটফর্মে গতকাল ডাচ্‌–বাংলা ব্যাংক-প্রথম আলো গণিত উৎসবের জাতীয় পর্বের ফল ঘোষণা করা হয়। মোট ৬৯ হাজার ১৯০ জন প্রতিযোগীর মধ্য থেকে ধাপ ধাপে বেছে নেওয়া হয়েছে চার ক্যাটাগরির (শ্রেণি) বিজয়ী ৫৯ জনকে। এর মধ্যে ৫ জন হয়েছে সেরাদের সেরা।

ফলাফল ঘোষণা ও সমাপনী অনুষ্ঠানে অনলাইনে যুক্ত হয়ে বক্তব্য দেন বাংলাদেশ গণিত অলিম্পিয়াড কমিটির সহসভাপতি অধ্যাপক মুহম্মদ জাফর ইকবাল, সদস্য অধ্যাপক মোহাম্মদ কায়কোবাদ, ডাচ্‌–বাংলা ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবুল কাশেম মো. শিরিন, প্রথম আলোর সহযোগী সম্পাদক আব্দুল কাইয়ুম ও আনিসুল হক। সঞ্চালনা করেন গণিত অলিম্পিয়াড কমিটির সাধারণ সম্পাদক মুনির হাসান। অনুষ্ঠানে অনলাইনে যুক্ত ছিলেন প্রথম আলো সম্পাদক মতিউর রহমান।

অনুষ্ঠানের শুরুতে গণিত অলিম্পিয়াড কমিটির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি সদ্য প্রয়াত জাতীয় অধ্যাপক জামিলুর রেজা চৌধুরী স্মরণে ‘আলোর পথযাত্রী’ শিরোনামে প্রামাণ্য চিত্র দেখানো হয়। এই প্রামাণ্য চিত্রে বরেণ্য এই শিক্ষাবিদের জীবন পথচলার নানা দিক তুলে ধরা হয়। তাঁর হাত ধরে দেশে কম্পিউটার শিক্ষার প্রচলন শুরু হয়। একই সঙ্গে প্রযুক্তিনির্ভর শিক্ষা ও প্রশিক্ষণের ক্ষেত্রে তাঁর বিশাল অবদান ছিল। অনুষ্ঠানে যুক্ত হওয়া বিশিষ্টজনেরাও তাঁদের বক্তব্যকে গুণী এই মানুষটিকে স্মরণ করেন। তাঁদের বক্তব্যে আরও উঠে আসে গণিত অলিম্পিয়াড ও গণিত উৎসবের যাত্রা ও বিকাশের কথা।

২০০৪ সালের বাংলাদেশ গণিত অলিম্পিয়াডের সমাপনী পর্বে অধ্যাপক জামিলুর রেজা চৌধুরী তাঁর একটি স্বপ্নের কথা বলেছিলেন। ২০৩০ সালের মধ্যে বাংলাদেশের একজন বিজ্ঞানী বিজ্ঞানের কোনো একটি শাখায় নোবেল পুরস্কার পাবেন, এটিই ছিল তাঁর স্বপ্ন। সেই লক্ষ্যে কাজ করছে গণিত অলিম্পিয়াড। গতকালের অনুষ্ঠানে বিশিষ্টজনেরা তাঁদের বক্তব্যে অধ্যাপক জামিলুর রেজা চৌধুরীর স্বপ্ন পূরণে কঠোর পরিশ্রম করতে বক্তারা শিক্ষার্থীদের প্রতি আহ্বান জানান।

অনুষ্ঠানে গণিত অলিম্পিয়াড কমিটির সহসভাপতি অধ্যাপক মুহম্মদ জাফল ইকবাল বলেন, অনলাইনে গণিত উৎসবের আসল ছোঁয়া পাওয়া যায় না। তাঁর প্রত্যাশা, শিক্ষার্থীরা সামনে আরও ভালো করবে। ভালো কাজের জন্য শিক্ষার্থীদের উৎসাহ দেন তিনি।

এই করোনাকালেও খুদে গণিতবিদেরা তাদের গণিতচর্চা অব্যাহত রেখেছে, এটা খুবই আনন্দের বলে উল্লেখ করেন গণিত অলিম্পিয়াড কমিটির সদস্য অধ্যাপক মোহাম্মদ কায়কোবাদ। তিনি জানান, সম্প্রতি অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক ব্লকচেইন অলিম্পিয়াডে বাংলাদেশের শিক্ষার্থীরা দুটি পদক পেয়েছে। তিনি বলেন, সামনের দিনে এ রকম আয়োজনে ভালো করতে হলে ভালোভাবে প্রস্তুতি নিতে হবে, পরিশ্রম করতে হবে।

ডাচ্-বাংলা ব্যাংক লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবুল কাশেম মো. শিরিন বলেন, করোনাকালেও শিক্ষার্থীদের প্রাণের এই উৎসবে যুক্ত থাকতে পেরে ডাচ্‌–বাংলা ব্যাংক গর্বিত। তিনি আশা প্রকাশ করেন, আগামী সেপ্টেম্বরে অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক গণিত উৎসবেও (অনলাইনে হবে) শিক্ষার্থীরা তাদের সাফল্যের ধারাবাহিকতা বজায় রাখবে।

প্রথম আলোর সহযোগী সম্পাদক আব্দুল কাইয়ুম শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বলেন, প্রয়াত জাতীয় অধ্যাপক জামিলুর রেজা চৌধুরী সুডোকু, ক্রসওয়ার্ড মেলাতেন। মেধা শাণিত করার ক্ষেত্রে এসবের তাৎপর্য তুলে ধরেন তিনি।

বাংলাদেশের শিক্ষার্থীরা যেভাবে আন্তর্জাতিক অঙ্গন থেকে সোনা-রুপার মেডেল জয় করে এনেছে, সেভাবে বর্তমান সংকটও এ দেশের মানুষ অতিক্রম করবে, এমন আশার কথা শোনান প্রথম আলোর সহযোগী সম্পাদক আনিসুল হক।

বিজয়ী যারা

জাতীয় পর্বে মোট ৫৯ জনকে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়। এর মধ্যে প্রাইমারি ক্যাটাগরিতে ১১ জন, জুনিয়র ক্যাটাগরিতে ১৬ জন, সেকেন্ডারি ক্যাটাগরিতে ১৪ ও হায়ার সেকেন্ডারিতে ১৮ জন। তাদের মধ্যে ‘চ্যাম্পিয়ন অব দ্য চ্যাম্পিয়নস’ হয়েছে যথাক্রমে প্রাইমারি ক্যাটাগরিতে আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের মো. রাফসান সোবহান, জুনিয়র ক্যাটাগরিতে স্যার জন উইলসন স্কুলের তাহমিদ আরমান ও রংপুর জিলা স্কুলের শাহরিয়ার হোসেন, সেকেন্ডারি ক্যাটাগরিতে আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের তাহমিদ হামিম চৌধুরী এবং হায়ার সেকেন্ডারি ক্যাটাগরিতে নটর ডেম কলেজের রাইয়ান জামিল। এ বছরের সেরা গণিত ক্লাবের সম্মান পেয়েছে বোসন বিজ্ঞান সংঘ। গণিত অলিম্পিয়াডের জাতীয় পর্বের ফলাফল পাওয়া যাবে online.matholympiad.org.bd এবং prothomalo.com এই ঠিকানায়।

এর আগে গত জানুয়ারি মাসে সারা দেশের ৬৯ হাজার ১৯০ শিক্ষার্থী গণিত অলিম্পিয়াডে অংশ নিতে নিবন্ধন করে। গত ২৮ ফেব্রুয়ারি বাছাইপর্বের নির্বাচিত হন ১৩ হাজার ৬২০ জন। তাদের নিয়ে মে মাসে আঞ্চলিক পর্ব অনুষ্ঠিত হয়। এই পর্বে বিজয়ী ১ হাজার ৩১২ জনকে নিয়ে ৩ জুলাই জাতীয় পর্ব অংশ নেয়। নিবন্ধন থেকে জাতীয় পর্ব পর্যন্ত সব আয়োজন অনলাইনে অনুষ্ঠিত হয়। জাতীয় উৎসবের বিজয়ীদের নিয়ে পরবর্তী সময়ে গণিত ক্যাম্প করা হবে। তাদের মধ্যে নির্বাচিত সেরা ৬ জন শিক্ষার্থী আগামী ২১–২২ সেপ্টেম্বর অনলাইনে অনুষ্ঠেয় আন্তর্জাতিক গণিত অলিম্পিয়াডে অংশ নেবে। ডাচ্‌–বাংলা ব্যাংকের পৃষ্ঠপোষকতায় ও প্রথম আলোর ব্যবস্থাপনায় বাংলাদেশ গণিত অলিম্পিয়াড কমিটি গণিত উৎসবের আয়োজন করেছে।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন