দেশের পঞ্চম মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হবে খুলনায়। নাম হবে ‘শেখ হাসিনা মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়’। গত সোমবার ওই সংক্রান্ত একটি চিঠি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে খুলনা জেলা প্রশাসকের কাছে এসেছে। চিঠিতে মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের জন্য প্রয়োজনীয় কার্যক্রম গ্রহণ করতে জেলা প্রশাসককে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। 

ওই চিঠি পাওয়ার পর খুলনাবাসীর দীর্ঘদিনের দাবি পূরণ হয়েছে বলে মনে করছেন খুলনার নাগরিক নেতারা। আর খুলনা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে এটাকে খুলনাবাসীর জন্য প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে দাবি করা হয়েছে। 

গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় খুলনায় বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের সম্মতি দেওয়ায় প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বিবৃতি দিয়েছে খুলনা মহানগর ও জেলা আওয়ামী লীগ। ওই বিবৃতিতে মহানগর ও জেলার নেতারা বলেন, খুলনা বিভাগে তথা দক্ষিণাঞ্চলের চিকিসাসেবা মানুষের দোড়গোড়ায় পৌঁছে দেওয়ার জন্য খুলনায় মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। খুলনাবাসীর দীর্ঘদিনের প্রাণের দাবি ছিল খুলনায় একটি মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করার। সেটি প্রধানমন্ত্রী সম্মতি জ্ঞাপন ও প্রয়োজনীয় কার্যক্রম গ্রহণের নির্দেশ দেওয়ায় ফলে আলোর মুখ দেখল। এটা খুলনাবাসী তথা দক্ষিণাঞ্চলের মানুষের জন্য প্রধানমন্ত্রীর একটি উপহার। যথা দ্রুত মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজ শুরু হবে বলে আওয়ামী লীগের নেতারা আশা প্রকাশ করেন। 

দক্ষিণাঞ্চলের উন্নয়নের জন্য একমাত্র আওয়ামী লীগ সরকার কাজ করে উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের নেতারা বলেন, প্রধানমন্ত্রী দক্ষিণাঞ্চলের মানুষের কল্যাণের জন্য বরাবরই দিয়ে গেছেন, আর বিএনপি জোট সরকার খুলনাবাসীকে বঞ্চিত করে গেছেন। এ জন্য গত নির্বাচনে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে দক্ষিণাঞ্চলের প্রতিটি আসনের প্রার্থীকে বিপুল ভোটে বিজয়ী করেছেন খুলনাবাসী। 

শিল্পনগরী খুলনাকে দেশের সেরা নগর ও অর্থনৈতিক অঞ্চল হিসেবে গড়ে তুলতে যা যা করণীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খুলনাবাসীর জন্য সেটাই করবেন বলে আশা করেন তাঁরা। 

কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বিবৃতি দেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সদস্য এবং শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মন্নুজান সুফিয়ান, খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও খুলনা সিটি মেয়র তালুকদার আবদুল খালেক, খুলনা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও খুলনা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ হারুনুর রশিদ, খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ মিজানুর রহমান ও জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক সুজিত অধিকারী। 

এর আগে সোমবার সন্ধ্যায় বৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটির এক সভা থেকে মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের সম্মতি দেওয়ায় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়ে বিবৃতি দেন সংগঠনটির নেতারা।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0