বিজ্ঞাপন

সেই সাথে পুলিশের দুই লক্ষাধিক সদস্য যাতে বিকেন্দ্রিভূত হয়ে নিবিড় পুলিশিং সেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে পারে, সে জন্য তাদের সুস্বাস্থ্য নিশ্চিত করার লক্ষ্যে বিভাগীয় ও জেলা পর্যায়ে ‘পুলিশ মেডিকেল সার্ভিসেস’ গঠনের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার কথা আলোচনা করা হয়। পুলিশের সদস্যরা যাতে ঢাকামুখী না হয়ে জেলা শহরকেন্দ্রিক চাকরির চিন্তা করেন সে জন্য বিভাগীয় পর্যায়ে পুলিশ সদস্যদের সন্তানদের জন্য উন্নত মানের বিদ্যাপীঠ প্রকল্প নেওয়ার বিষয়ে আলোচনা হয়।

মতবিনিময় সভায় আইজিপি বেনজীর আহমেদ সভাপতিত্ব করেন। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব মোস্তফা কামাল উদ্দীন, অতিরিক্ত সচিব মো. হারুন-অর-রশিদ বিশ্বাসসহ পুলিশের অতিরিক্ত আইজিপিবৃন্দ এবং বিভিন্ন পর্যায়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

জ্যেষ্ঠ সচিব মোস্তফা কামাল উদ্দীন বলেন, পুলিশ ইতিমধ্যেই অপরাধ নির্মূলে তাদের দক্ষতা ও সক্ষমতার পরিচয় দিয়েছেন। ভবিষ্যৎমুখী, প্রযুক্তিনির্ভর, চৌকস এই বাহিনীর সদস্যদের সার্বিক কল্যাণ নিশ্চিতকল্পে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে কাজ করে চলেছে।

আইজিপি বেনজীর আহমেদ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, জ্যেষ্ঠ সচিবসহ উপস্থিত সবাইকে এই মতবিনিময় সভায় যোগ দেওয়ায় ধন্যবাদ জানিয়ে যেকোনো দুর্যোগ মোকাবিলায় পুলিশের প্রত্যয় ও মনোবলের কথা আবারও ব্যক্ত করেন।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন