নির্বাচন কমিশন ভোটারদের জন্য অনলাইন সেবা চালু করেছে। এ পদ্ধতিতে ঘরে বসেই অনলাইনে নতুন ভোটার হওয়া, তথ্য সংশোধন, সই পরিবর্তন ও হারানো জাতীয় পরিচয়পত্র পেতে আবেদন করা যাবে।

আজ বুধবার নির্বাচন কমিশনের (ইসি) সম্মেলন কক্ষে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী রকিবউদ্দীন আহমদ এ কর্মসূচি উদ্বোধন করেন।
তবে অনলাইন সেবার শুরুতেই গলদ দেখা দেয়। অনুষ্ঠানে ইসির ওয়েবসাইটের (http://www.ec.org.bd) ‘এনআইডি অনলাইন সার্ভিস’ অপশনে জনৈক জুবায়ের ইবনে সালেহর এনআইডি (জাতীয় পরিচয়পত্র) নম্বর ও জন্ম তারিখ লেখা হয়। এর জবাবে ওই ব্যক্তির মোবাইলে ফিরতি এসএমএসের মাধ্যমে একটি পাসওয়ার্ড আসার কথা। কিন্তু তা আসেনি। শেষ পর্যন্ত পরীক্ষামূলক এ কাজের সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়। সিইসি ব্যাখ্যা দিয়ে বলেন, আগারগাঁওয়ে এনআইডি কার্যালয়ের পাশের ভবনে আগুন লাগায় সার্ভার কাজ করছে না।
অনুষ্ঠান শেষে ইসি সচিবালয়ের কর্মকর্তাদের অনেকে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানকে ‘তামাশা’ বলে আখ্যায়িত করেন। আজ দুপুরের পর ইসির ওয়েবসাইটটির প্রদর্শনও বন্ধ হয়ে যায়। তবে পুরোনো ওয়েবসাইটটি প্রদর্শিত হয়। এর এনআইডি অনলাইন সার্ভিস অপশনে ক্লিক করার পর নতুন একটি পাতা উন্মুক্ত হয়। তাতে লেখা আছে, ‘এই ওয়েবসাইটে ঢুকলে হ্যাকার আপনার যাবতীয় তথ্য, পাসওয়ার্ড ও ক্রেডিট কার্ড চুরি করতে পারে’।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সিইসি কাজী রকিবউদ্দীন বলেন, আজ থেকে অনলাইন সেবা শুরু হচ্ছে। এর মাধ্যমে মানুষ সহজে সেবা পাবে।
ইসি সচিবালয়ের সচিব সিরাজুল ইসলাম বলেন, স্মার্ট কার্ড দেওয়ার আগে ভোটারদের তথ্য সংশোধনে অনলাইনে আবেদনের সুযোগ দেওয়া হচ্ছে। নতুন ভোটাররাও এ সুযোগ পাবেন। এতে তথ্যভান্ডার আরও নির্ভুল হবে।
জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগের মহাপরিচালক সুলতানুজ্জামান মো. সালেহউদ্দিন জানান, ভোটারদের তথ্যের নিরাপত্তা নিশ্চিত করে এ সেবা দেওয়া হচ্ছে। নিবন্ধন করে নির্ধারিত পাসওয়ার্ডের মাধ্যমে অনলাইন আবেদন করা যাবে।
অনুষ্ঠানে আবেদন-প্রক্রিয়া শুরুর আগে জুবায়ের ইবনে সালেহ বলেন, ‘আমি শেরপুর থেকে তথ্য পরিবর্তনের জন্য প্রকল্প অফিসে এসেছি। অনলাইনের মাধ্যমে আবেদন করে দেওয়া হবে বলে আমাকে এখানে আনা হয়েছে।’
এরপর জুবায়ের ওয়েবসাইটের নির্ধারিত ঘরে এনআইডি নম্বর ও জন্ম তারিখ বসিয়ে ক্লিক করেন। কিন্তু জুবায়েরের মোবাইলে ফিরতি এসএমএস আসেনি। এতে সিইসিসহ উপস্থিত সবাই বিব্রতকর অবস্থায় পড়েন।
সিইসি জানতে চান, ‘কিছু হচ্ছে না?’ জবাবে একজন কর্মকর্তা বলেন, ‘স্যার, আগারগাঁওয়ে আগুন লেগেছে। তাই সার্ভারে ঝামেলা হচ্ছে। দ্রুত ঠিক হয়ে যাবে।’ সিইসি বললেন, ‘ওখানে ফোন করেন, চালু করা যায় কি না।’
কিন্তু সার্ভার শেষ পর্যন্ত চালু করা সম্ভব হয়নি। অবশেষে সিইসি বলেন, সাময়িক অসুবিধার জন্য কাজটি করা না গেলেও অনলাইন সেবার ‘উদ্বোধন ঘোষণা করছি’।
সংবাদ সম্মেলনে নির্বাচন কমিশনার আবদুল মোবারক, মো. শাহ নেওয়াজ, আবু হাফিজ, জাবেদ আলী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন