default-image

গোসলে গিয়ে লালমনিরহাট সদর উপজেলার রাজপুরের সতী নদীতে ডুবে গতকাল মঙ্গলবার দম্পতির মৃত্যু হয়েছে। তাঁরা হলেন রংপুর শহরের কামাল কাছনার মকবুল হোসেনের ছেলে আনোয়ারুল হক (২৫) ও আনোয়ারুল হকের স্ত্রী বৃষ্টি বেগম (১৯)। মাত্র ছয় মাস আগে এই দম্পতির বিয়ে হয়। তাদের কেউ সাঁতার জানতেন না।

লালমনিরহাট ও কুড়িগ্রাম ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স দলের সদস্যরা গতকাল মঙ্গলবার বিকেল পাঁচটার দিকে সতী নদী থেকে এই দম্পতির লাশ উদ্ধার করে।

লালমনিরহাট সদর থানার পুলিশ এবং লালমনিরহাট ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সূত্রে জানা যায়, আনোয়ার–বৃষ্টি দম্পতি সদর উপজেলার রাজপুরের জগৎবেড় গ্রামের ফারুক হোসেনের বাড়িতে বেড়াতে যান। তিনি বৃষ্টি বেগমের মামা। গতকাল দুপুরে বাড়ির কাউকে না বলে এই দম্পতি সতী নদীতে গোসল করতে যান। পরে নদীর পানিতে ডুবে তাঁরা মারা যান বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন।

রাজপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান মোফাজ্জল হোসেন এ খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেন।

লালমনিরহাট সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহফুজ আলম বলেন, আনোয়ারুল হক ও বৃষ্টি বেগমের নদীতে ডুবে মৃত্যুর ঘটনায় কারো কোনো অভিযোগ না থাকায় তাদের মরদেহ ময়নাতদন্ত ছাড়াই পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

আনোয়ারুল হকের বাবা মকবুল হোসেনের বরাত দিয়ে এই পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, তাঁরা স্বামী–স্ত্রী সাঁতার না জানায় তাদের নদীতে যেতে মানা করেছিল পরিবারের লোকজন। কিন্তু বাড়ির লোকজনের অগোচরে তাঁরা নদীতে গোসল করতে যান। অনেকক্ষণ পেরিয়ে গেলেও তাঁরা বাড়ি না ফেরায় তাদের খোঁজাখুঁজি শুরু হয়। গ্রামের লোকজন তাদের জানান যে এই দম্পতিকে তাঁরা নদীর দিকে যেতে দেখেছেন। পরে ফায়ার সার্ভিসের লোকজন গিয়ে তাদের লাশ উদ্ধার করে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0